অনলাইনে গরু কেনা-বেচা: উদ্যোক্তাদের নি‌য়ে কাজ করছে ডিসি

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ভিড় ঠেলা, দরদাম করে হাটে গিয়ে পশু বিক্রির ঝামেলা থেকে যাঁরা দূরে থাকতে চান, নারায়ণগঞ্জে তাদের জন্য বড় স্বস্তির খবর নিয়ে আসছে জেলা প্রশাসন। এবারের কুরবানীর ঈদে অনলাইন পশু কেনা-বেচা করতে চাইছে; এমন উদ্যোক্তাদের একটি প্লাট ফর্মে আনতে কাজ করছেন তারা।

এরই মধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি দিয়ে সেই সব উদ্যোক্তাদের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর পাঠাতে বলেছেন।

করোনার এই সময়ে অনেকেই স্বাস্থ্যবিধির কথা মাথায় রেখে হাটে না যাওয়ার শঙ্কা করছেন। তাই কোরবানির পশু বিক্রির প্রচার-প্রচারণায় এখনই সরব হয়ে উঠেছে বিভিন্ন অনলাইন হাট। ফেসবুকেও বিভিন্ন গ্রুপ পেজ খুলে চালাচ্ছে বিক্রি ও প্রচারের কাজ। তবে অনলাইনে পশু কেনার সময়ও সতর্ক না থাকলে প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, অনলাইনে বিক্রির জন্য প্লাটফরম রেডি আছে। বিক্রেতারাও তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজ বা সামাজিক যোগাযোগের অন্যান্য মাধ্যমে তাদের পশুর ছবি আপলোড করছে। আমরা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদেরকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করবো। তাদেরকে প্রমোট করার জন্য বা প্রচারণার ব্যবস্থা করবো। যাতে ক্রেতা ও বিক্রেতা কেউ প্রতারিত না হন; পশুর ওজন অনুযায়ী আমরা একটা দামও নির্ধারণ করা যায় কি না? খুব শীঘ্রই একটা মিটিংয়ে সিদ্ধান্ত নিবো।

প্রসঙ্গত, নারায়ণগঞ্জ জেলায় এবার কোরবানির পশুর চাহিদা প্রায় এক লাখ। জেলার বিভিন্ন এলাকার ২‘শ খামারে গরু মোটাতাজা করা হয়েছে প্রায় ১০ হাজার। বাকি গরুর চাহিদা মিটবে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা গরু দিয়ে।

0