অবশেষে হেরে গেলেন মাহবুব

0

সোনারগাঁ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: দাবিকৃত চাদাঁ না পেয়ে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে আহত করার আট মাস পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোনারগাঁ উপজেলার মাহবুবুর রহমান (৩২) নামে এক যুবক । শুক্রবার সকালে ঢাকার একটি হাসপতালে মারা গেছেন তিনি।

উপজেলার সনমান্দী ইউনিয়নের লেদামদী গ্রামের বাসিন্দা ও নিহত মাহবুবুর রহমানের স্ত্রী শারমিন আক্তার জানান, চাকুরীর পাশাপাশি তার স্বামী স্থানীয় ব্যবসা করতেন।

গত ২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর তার স্বামীর কাছে দাবিকৃত চাদাঁ না পেয়ে পাশ্ববর্তী টেমদী গ্রামের বাসিন্দা রুবেল মিয়া, দেলোয়ার হোসেন, আমির হোসেন, মোমেন মিয়া, কবির হোসেন, রবিন মিয়া, আবু হানিফ, ও আল আমিন মিয়া সহ ১০/১২ জনের একদল বাহিনী রামদা, টেটা ও রড দিয়ে তার স্বামী মাহবুবুর রহমানকে এলো পাথারিভাবে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে তার স্বামীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও কয়েকটি বেসরকারী হাসপাতালে দীর্ঘ আট মাস চিকিৎসা পর গতকাল শুক্রবার সকালে ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিসিইউতে) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে লাশের দাফন করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও নারায়ণগঞ্জ গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপ-পরিদর্শক (এসআই) এসএম শরীফুল ইসলাম জানান, আহত মাহবুবুর রহমান নিহত হওয়ার কারনে চাদাঁবাজী ও মারধরের মামলাটি হত্যা মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করা হবে। আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালানো হবে।

0