অভিভূত জিএম কাদের ‘সেলিম, তুমি তো রেকর্ড করসো’ (ভিডিওসহ)

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নিজের ৭৩তম জন্মদিনে পেলেন এমন এক চমক, স্বীকার করেছেন সারা জীবন মনে রাখবেন। এমপি সেলিম ওসমানের পক্ষ থেকে নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকায় গিয়ে নেতাদের দেয়া শুভেচ্ছা আয়োজনে অবাক হয়ে গেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের (জি এম কাদের) এমপি । এমপি সেলিম ওসমানের পক্ষ থেকে বিশালাকৃতির ১২৫ পাউন্ড’র এক কেক কেটে জন্মদিন পালন করা হয় চেয়ারম্যানের।

জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য, বিকেএমইএ সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি একেএম সেলিম ওসমান দেশের বাইরে থাকায় স্বশরীরে উপস্থিত থাকতে পারেননি। তবে তার উদ্যোগে জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজন ও আন্তরিকতায় স্বগৌরবে তার উপস্থিতি জানান দেয়া হয়। কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীরাও অবাক, এমন ভিন্নধর্মী এক আয়োজনের সেলিম ওসমানের প্রশংসায় সবাই পঞ্চমুখ।

তাইতো অভিভূত জিএম কাদের নিজেই মুঠোফোনে করলেন তার প্রশংসা করে বলেন, ‘সেলিম, তোমাকে কি বলে ধন্যবাদ জানাবো! এত বড় কেক তো আমি আমার লাইফেও দেখি নাই, তুমি তো রেকর্ড করসো। আল্লাহ ভাল করুক তোমার, তুমি আমাকে যে সম্মান দিলে, আমি সারা জীবন মনে রাখবো। এত বড় কেক যে আমাদের গেট দিয়েই ঢুকাতে পারলাম না, বাধ্য হয়ে বাইরে রেখেই কাটতে হলো। মাশআল্লাহ। তোমার আয়োজন চমৎকার।’

দেশের বাইরে থেকেও এত সুনিপুণভাবে দলের চেয়ারম্যানের প্রতি আন্তরিকতা ও আনুগত্যের এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন এমপি সেলিম ওসমান। নারায়ণগঞ্জ থেকে বনানীতে যেয়ে তার পক্ষ থেকে রাজকীয় আয়োজন করে দলের প্রতি আত্মনিবেদন প্রকাশ করেছেন জেলার নেতৃবৃন্দ। অন্যান্য জেলা-থানা থেকে আগত নেতাকর্মীরাদের চেয়ে নারায়ণগঞ্জ আসলেই যে আলাদা, তা নারায়ণগঞ্জের নেতাকর্মীদের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

দলের চেয়ারম্যানের জন্মদিনে অন্য সবার আয়োজনকে ছাপিয়ে নিজেদের বলিষ্ট সাংগঠনিক শক্তি ও দলের প্রতি আনুগত্যের এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন এমপি সেলিম ওসমানের পক্ষে নারায়ণগঞ্জের জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও বন্দর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সানা উল্লাহ সানু, মহানগর সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক আকরাম আলী শাহীন, মহানগর জাতীয় পার্টির সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব ও এনসিসির ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেন।

বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১১ টায় বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে সম্মিলিত হয়ে প্রিয় নেতাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে ভিড় জমান সারা দেশের নেতৃবৃন্দ। তবে সবাইকে টেক্কা দিয়ে সেরা আয়োজনের মুকুট ছিনিয়ে এনেছেন সেলিম ওসমানের কর্মীরা। সেখানে কেক কেটে ও ফুল দিয়ে দলের চেয়ারম্যানকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও শুভকামনা জানান তারা। একই সাথে তার দীর্ঘায়ূ কামনা করেন ও দেশগঠনে বলিষ্ট ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

সে সময় নারায়ণগঞ্জ থেকে আরও উপস্থিত ছিলেন, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক মো. গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, সদস্য সচিব মো. হানিফ, মহানগর জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক হাজী মো. নুর ইসলাম, জাতীয় পার্টির জেলার যুগ্ম আহবায়ক আমিনুল হক প্রধান, মহানগর জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক মো. নজরুল ইসলাম, সিদ্ধিরগঞ্জ থানার জাতীয় পার্টির সভাপতি কাজি মো. মহসিন, যুব সংহতির সদস্য সচিব মো. কামাল, যুব সংহতির রিপন ভাওয়াল, লিয়াকত, সাইদ চৌধুরী, মাহবুব সিকদার।

উল্লেখ্য, ১৯৪৭ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি কুচবিহার মহারাজার সাবেক মন্ত্রী মকবুল হোসেন ও মজিদা খাতুন দম্পতির ঘরে জন্ম গ্রহণ করেন জিএম কাদের। ৪ ভাই ও ৫ বোনের মধ্যে তিনি মেজ। তিনি বর্তমানে লালমনিরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে কাদের ৭ জানুয়ারি ২০০৯ তারিখে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান। ৭ ডিসেম্বর ২০১১ সালে তাকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয় এবং ১১ জানুয়ারি ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি এ দায়িত্ব পালন করেন।

0