অস্বস্তিতে প্রশাসনঃ জিহাদীকে মুক্তি দিলেও আন্দোলন, না দিলেও আন্দোলন!

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তিকে কেন্দ্র করে ধর্মীয় সংগঠন হেফাজত ইসলাম ও আহলে সুন্নত অনুসারীদের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে নগরীতে। যে কোন সময় ঘটতে পারে অপ্রীতিকর ঘটনা! এ অবস্থায় পুলিশ বলছে, ‘জনসাধারণের ভোগান্তি কিংবা আইন লঙ্ঘন করলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে’।

গত ১৮ সেপ্টেম্বর হেফাজত ইসলামের আমির আহমেদ শফির মৃত্যু হয়। ১৯ সেপ্টেম্বর আলাউদ্দিন জিহাদীর একটি ফেসবুক পেইজ থেকে প্রয়াত এই নেতাকে নিয়ে কটুক্তি করা হয়। ২০ সেপ্টেম্বর সকালে ফতুল্লা থানায় আলাউদ্দিন জিহাদীকে বিবাদী করে মামলা করে দেওভোগ মাদ্রাসার খতিব হারুন অর রশিদ। সেদিনই ফতুল্লার থানা পুলিশ সাইনবোর্ড এলাকা থেকে আলাউদ্দিন জিহাদীকে গ্রেপ্তার করে।

২২ সেপ্টেম্বর আলাউদ্দিন জিহাদীকে মুক্তির দাবিতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড অবরোধ করে তার অনুসারীরা। নগরে মানববন্ধন করে, জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারক লিপি দেন। দাবী করা হয়, নিঃশর্ত মুক্তির। জিহাদীর অনুসারীরা জানান, ‘আলাউদ্দিন জিহাদীর নামধারী আইডি দিয়ে কটুক্তি করা হয়েছে। যা তিনি করেন নি, বরং এর জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন। তবুও তার বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দেওয়া হয়েছে। ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেলে প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হবে এবং ২৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৩ টায় নারায়ণগঞ্জে গণজমায়েত অনুষ্ঠিত হবে। সরকার যদি তারপরও আলাউদ্দিন জিহাদীকে মুক্তি না দেয় নারায়ণগঞ্জে সড়ক-রেল-নৌ পথ অবরোধ করে হরতাল পালন করবো।’

অপর দিকে, হেফাজত ইসলামের আমির আহমেদ শফিকে নিয়ে কটুক্তির পর থেকেই বিচারের দাবীতে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ, মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন। আলাউদ্দিন জিহাদীর মন্তব্য অত্যন্ত ঘৃণ্যতম বলে জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ হেফাজতের আমীর মাওলানা আব্দুল আউয়াল কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী দেন। তিনি দাবী জানান, ‘লিখিত ভাবে ভুল স্বীকার না করে আলাউদ্দিন জিহাদীকে মুক্তি দেয়া হলে, কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়া হবে। মাদ্রাসা ও হেফাজতের নিজেদের অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিয়ে তারা যা বলছে তা সম্পূর্ণই মিথ্যা।’

এ বিষয়ে লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ জায়েদুল আলম জানান, ‘ আন্দোলন করলে নিয়ম-কানুন মানতে হবে। আইনের কোন ব্যাতয় ঘটলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

0