অয়ন ওসমানকে নিয়ে রাফেলের স্ট্যাটাস আলোচনায়

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেঅএম শামীম ওসমানের পুত্র অয়ন ওসমানকে নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসমাঈল রাফেলের দেয়া ফেসবুক স্ট্যাটাসে আলোচনা সৃষ্টি হয়েছে।

রাফেলের স্ট্যাটাসটি ফেসবুক আইডিতে পোস্ট করার সাথে সাথে স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের ফেসবুক আইডিতে শেয়ার শুরু করলে মূহূর্তেই স্ট্যাটাসটি আলোচনায় চলে আছে।

স্ট্যাটাসে আশরাফুল ইসমাঈল রাফেল লিখেছেন, অয়ন ওসমান হচ্ছেন সেই শামীম ওসমানের ছেলে যিনি নারায়নগঞ্জ বাসীকে কলঙ্ক ও অভিশাপ মুক্ত করেছেন এবং আধুনিক নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নের রূপকার। অয়ন ওসমান সেই সন্তান যাকে নিয়ে পিতা মাতা গর্ব বোধ করেন। স্ত্রীর কাছে যিনি একজন আদর্শ স্বামী। নারায়নগঞ্জের লাক্ষো তরুণের আদর্শ। বন্ধুদের কাছে যিনি একজন প্রকৃত বন্ধু। বন্ধু ছোট ভাইসহ সবাই যাকে স্নেহ ভালবাসা ও ভরসার আশ্রয় স্থল মনে করে। যিনি খেলাধুলা, ব্যবসা বাণিজ্য, রাজনীতিতে, সকল কে উৎসাহ প্রদান, নেতৃত্ব গঠনে সহায়তাসহ আর্থিক সহযোগিতা করে থাকেন। প্রতিভাবানদের প্রতিভা বিকাশে উৎসাহ ও আর্থিক সহযোগিতা করে থাকেন যেমন-‘ল্যাম্বরগিনি’। যিনি বিভিন্ন উৎসবে গরীব দুঃখী পথশিশুদের মাঝে জামা কাপড়সহ আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে তাদের মুখে হাসি ফুটিয়ে থাকেন। যারা টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে পারে না, মেয়ের #বিয়ে দিতে পারেনা, #পড়ালেখা করতে পারেনা এরকম বহু মানুষের সমস্যার দায়িত্ব নিয়ে তাদের সহযোগিতা করেছেন যারা ভুরি ভুরি উদাহরন রয়েছে। মসজিদ মাদ্রাসায় যিনি সহযোগিতা করে থাকেন। ডেঙ্গু মহামারি রোধে মশক নিধন কর্মসূচী নিয়েছেন মাসব্যপী নিজস্ব অর্থায়নে। ভালবেসে যিনি তার বন্ধু বান্ধব ভাই তথা সকলকে একজন অভিবাবকের ন্যায় সবমসময় আগলিয়ে রাখেন এবং সুখ দুঃখ ভাগাভাগি করেন।

রাফেল স্ট্যাটাসে আরো লিখেছেন, অয়ন ওসমানের রাজনীতি সবার নিকট দৃশ্যমান। যার বুদ্ধি পরামর্শ এবং সার্বিক সহযোগিতায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ আজ সুনামের সাথে পরিচালিত হচ্ছে। যে ছাত্রলীগেরর প্রতিটি নেতা কর্মী স্বতস্ফূর্ত ভাবে কেন্দ্রীয় ও জেলার প্রতিটি কর্মসূচিতে অংশগ্রহন করে অনুষ্ঠান সফল করছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মীদের কর্মকান্ডে অনুপ্রানিত হয়ে বিভিন্ন মিছিলে হাজার হাজার ছাত্র জনতার স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহন লক্ষ্য করা যায়। হ্যাঁ তিনি শাসন করেন যে শাসনের ফলে আজ নারায়নগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের কোন নেতা কর্মীর নামে কোন সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, ক্ষমতার অপব্যবহার মামলা ইত্যাদি কিছুই নেই, নেই কোন বিতর্কিত নেতা কর্মী। তিনি ছাত্রলীগ কমিটি গঠনে খোঁজখবর নিয়েছেন এবং তার কমিটির ব্যাপারে একটাই চাওয়া ছিল যাতে এই কমিটিতে কোন অছাত্র, সন্ত্রাসী, মাদকসেবী, মাদকব্যবসায়ী, চাদাঁবাজ, বিএনপি-জামাত শিবিরের দোসর, স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির কেউ যাতে ডুকে না পড়ে। ছাত্রলীগ কমিটি যাতে হয় ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র অনুযায়ীই এবং প্রকৃত বঙ্গবন্ধুর তৃণমূল সৈনিকদেন দিয়ে সেদিক খেয়াল রেখেছেন। আজ তারই সুফল নারায়নগঞ্জ বাসী পাচ্ছে। ছাত্রলীগ কাজ করছে জনগনের জন্য মানবতার জন্য। ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান কমিটির সকলের সাথে সকলের রয়েছে এক ভ্রাতৃত্বপূর্ন সম্পর্ক এ যেন সকলে মিলে একটি পরিবারের ন্যায়। আজ তাদের পরিবারের কারনেই নারায়নগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামিলীগ ও তাদের সকল অঙ্গসংগঠনের মাঝে এক অভূতপূর্ন মিল ও ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যার কারনে বাংলাদেশের সকল জেলার মধ্যে নারায়নগঞ্জ জেলায় আওয়ামীলীগ অনেক শক্তিশালী। সর্বশেষ আরেকটি কথা বলতে চাই নারায়নগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক কমিটির আগের কমিটি এহসানুল হক নিপুর(মামা) বলিষ্ঠ নেতৃত্বে তৎকালীন বিএনপি জামাত আমলে তৎকালীন শাসক গোষ্ঠীর হত্যা, জেল, জুলুম, দুর্নীতী, ক্ষমতার অপব্যবহার, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠায় রাজপথে কঠোর আন্দোলন সংগ্রাম গড়ে তুলেছিলেন। সাবেক কমিটি সাফায়েত আলম সানি ভাই ও সুজন ভাইয়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশের সকল জেলার মধ্যে নারায়নগঞ্জ জেলা অনেক সুনাম অর্জন করে।

0