আইভী একটা মিথ্যাবাদী: আব্দুল হাশেম (ভিডিওসহ)

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে পূর্ণবাসন ছাড়া হকার উচ্ছেদ চলবে না, হর্কাস মার্কেট আধুনিক ও বহুতলে রূপান্তরসহ নানা দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করেছে জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদ।


৫জুলাই প্রেসক্লাবের সামনে হকার ইস্যুর নানা দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করে সংগঠনটি।

নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি আসাদুল ইসলাম আসাদের সভাপতিত্বে এসময় উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন সংগঠনের সভাপতি আব্দুল হাশেম কবির, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার হায়াৎ, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স লীগের সভাপতি আব্দুর রহিম মুন্সিসহ আরও অনেকে।

বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন সংগঠনের সভাপতি আব্দুল হাশেম কবির বলেন, ঢাকায় আমরা আমাদের দাবি আদায় করেছি। সেখানকার বিভিন্ন জোনের ডিসিসহ সকলের সাথে আমাদের সুঃসম্পর্ক রয়েছে। তাদের সাথে সম্পর্ক ভালো রেখে আমরা হকারদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, দাবি আদায় করেছি। কিন্তু, আপনাদের নারায়ণগঞ্জে যে মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী আমি জানি উনি একটা মিথ্যাবাদী। সেটা কিন্তু আপনারা জানেন না আমি জানি। এই সেলিনা হায়াত আইভী, ঢাকার মেয়র সাঈদ খোকন, খুলনা ও গাজীপুরের মেয়রসহ ৪-৫জন মেয়রকে নিয়ে একাত্তর চ্যানেলের এক টক-শো তে বসেছিলাম। আইভী আমাকে বলেছিল, তিনি যতদিন মেয়র থাকবেন ততদিন নারায়ণগঞ্জে হকার উচ্ছেদ হবে না। কিন্তু, সেই টক-শো  থেকে বের হওয়ার পর দেখলাম আইভী বিভিন্নভাবে হকারদের উপর নির্যাতন করতেছে, বাংলাদেশের পুলিশের আইজিকে পর্যন্ত কল দেয় তা আমি শুনতে পারছি। আমি আইভীকে স্পটভাবে বলতে চাই, ঢাকার হকাররা সাঈদ খোকনকে লাল কার্ড দেখিয়েছে। আপনাকেও কিন্তু এই হকাররা নারায়ণগঞ্জের মাটিতে লাল কার্ড দেখাবে। সে সময় বেশি দূরে নেই।

বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলাম বলেন, করোনার এই মহামারীর সময়েও কোন হকাররাই সরকারি কোন ত্রান সহায়তা পায় নি। হকারদের জন্য সিটি কর্পোরেশন থেকে যে মার্কেট তৈরি করা হয়েছে, সেখানে বসে থাকার সুযোগ নেই। ফুটপাতে যখন হকাররা বসে তখনই প্রশাসনের লোকরা উঠিয়ে দেয়। কিন্তু, বড় বড় মার্কেট-দোকানের সামনে যখন গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয় তখন সমস্যা হয় না ? যানজট হয় না? । পুলিশের কর্মকর্তা যারা আছেন, তারাও অনেকে গরীবের সন্তান। একটা গরীব পরিবারের কতটা কষ্ট তা আপনারাও বুঝেন। এই গরীব মানুষগুলোর পেটে আর লাথি মারবেন না, তারা অনেক কষ্ট সহ্য করেছে। শুধুমাত্র পেটের দ্বায়েই তাদের এই কষ্ট সহ্য করতে হচ্ছে। যদি তাদের উপর আর অত্যাচার হয়, প্রয়োজনে আমরা কঠোর কর্মসূচি করবো।

সভাপতির বক্তব্যে আসাদুল ইসলাম আসাদ বলেন, পূর্ণবাসন ছাড়া কোন ভাবেই বঙ্গবন্ধু সড়ক থেকে হকার উচ্ছেদ করা যাবে না। যদি পূর্ণবাসন ব্যতীত কেউ হকার উচ্ছেদ করতে চায়, আমরা যে যেখানে আছি সেখান থেকেই প্রতিবাদ গড়ে তুলবো। আমরা যখন মার খেতে শিখেছি কেউ আমাদের দাবায় রাখতে পারবে না।

সমাবেশ শেষে প্রেসক্লাব থেকে একটি মিছিল নারায়ণগঞ্জ ২নং রেলগেইট ফজর আলী ট্রেড সেন্টারের সামনে এসে শেষ হয়।

0