আইভী হত্যা চেষ্টা মামলা: নিজাম, হেলালসহ ৮ জনের জামিন

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: হকার ও নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় জামিন পেয়েছে মামলায় এজাহারনামীয় শামীম ওসমান পন্থী আট নেতা।

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) সকালে জেলা ও দায়রা জজ আনিসুর রহমানের আদালতে জামিন শুনানি হয়৷ পরে আদালত আসামিদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন৷

আসামিপক্ষের আইনজীবী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. হাসান ফেরদৌস জুয়েল বলেন, জেলা ও দায়রা জজ আদালতে জামিন শুনানি হয়৷ আদালত আটজনের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন৷ আদেশের কাগজ এখনও পাইনি৷ কাগজ পেলে জামিনের মেয়াদ সম্পর্কে জানা যাবে৷

জামিনপ্রাপ্তরা হলেন- নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, যুবলীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগ কর্মী নাসির উদ্দিন, যুবলীগ নেতা চঞ্চল মাহমুদ। তবে এই মামলার প্রধান আসামি নিয়াজুল ইসলাম খান দেশের বাহিরে থাকায় জামিন আবেদন করতে পারেনি।

হকার ও মেয়র আইভীর সমর্থকদের সংঘর্ষের ঘটনায় ২২ মাস ১৮ দিন পর গত ৪ ডিসেম্বর আদালতে মামলা হয়৷ মামলার বাদী সিটি করপোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার উল্লেখ করেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে হত্যা চেষ্টা করা হয়েছিল। পরে নারায়ণগঞ্জ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ফাহমিদা খাতুনের আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন৷

মামলায় ঘটনায় নিয়াজুল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজামসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত প্রায় ৯০০ থেকে ১০০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে।

এই ঘটনায় এর আগে ২০১৮ সালের ২৩ জানুয়ারি সিটি করপোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও তা মামলা হিসেবে নেয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, ফুটপাতে হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে ২০১৮ সালের ১৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় মেয়র আইভী ও তার সমর্থকদের সাথে হকারদের সংঘর্ষ হয়। ওই সংঘর্ষে মেয়র আইভীর সমর্থকরা নিয়াজুলের উপর হামলা করলে শামীম ওসমানের সমর্থক শাহ্ নিজাম, জাকিরুল আলম হেলাল ও শাহাদাৎ হোসেন সাজনুরা নিয়াজুল ইসলামকে উদ্ধার করতে ছুটে যান।

0