আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা না.গঞ্জে ১৭ মার্চ উদ্বোধন হতে পারে

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের পরিবর্তে নারায়ণগঞ্জের পূর্বাচলের ‘বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার’-এ অনুষ্ঠিত হবে। তবে হস্তান্তরের জন্য প্রস্তুত থাকলেও আনুষ্ঠানিকতার কারণে এখনও চীনা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এক্সিবিশন সেন্টারটি বুঝে পায়নি সরকার।

জানা গেছে, চলমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে অন্যান্য বছরের মতো বছরের শুরুতে বসছে না আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনকে (১৭ মার্চ) কেন্দ্র করে মাসব্যাপী এ মেলা বসবে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের পরিবর্তে মেলার ভেন্যু করা হয়েছে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ব্রাহ্মণখালীর বাগরাইয়াটের (পূর্বাচলে) ‘বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার’-কে।

বাণিজ্য মেলাকে আন্তর্জাতিক রূপ দিতে ২০১৫ সালে চীনের সহায়তায় ৭৯৬ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেয় সরকার। চুক্তি অনুযায়ী চীনের নির্মাতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টার বুঝে পাওয়ার কথা ছিলো। তবে চায়না প্রতিষ্ঠানের প্রস্তাবনা অনুযায়ী আনুষ্ঠানিকতার জন্য এখনও সেটি বুঝে পায়নি সরকার।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের প্রকল্প পরিচালক রেজাউল করিম বলেন, ‘হস্তান্তর এখনও হয়নি, সবকিছু রেডি আছে। কীভাবে অনুষ্ঠান করে করব, না কী করব…ওইভাবেই আছে, এমনিতে কাজ শেষ।’

আনুষ্ঠানিকতার জন্যই হস্তান্তর আটকে আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ সেটাই, ব্যাপারটা ওইরকমই। কীভাবে হস্তান্তর করবে সে বিষয়ে চায়না অ্যাম্বাসি একটা প্রস্তাব দিয়েছে সেটা বিবেচনা করছি। এটি অনলাইনে করবে বা কীভাবে করবে সেটা বিবেচনাধীন। আগে প্রোগ্রাম ঠিক হবে, তারপর তারিখ। আনুষ্ঠানিকতা হলে হস্তান্তরের তারিখও হয়ে যাবে। আশা করি পরবর্তী সপ্তাহের মধ্যেই হওয়া উচিত, কাজ তো শেষ।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাণিজ্য সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীন বলেন, ‘আমরা একটি কমিটি করে দিয়েছি। তারা বুঝে নেবে। এই মাসেই হস্তান্তর হয়ে যাওয়ার কথা। আমার মনে হয় মেজর পার্টটা বুঝে নিয়েছে। হয়ত এক-দুই দিন এদিক-সেদিক হতে পারে।’

মেলার প্রস্তুতি বিষয়ে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা মাঠ পরিদর্শক মো. খালিকুজ্জামান বলেন, ‘বাণিজ্য মেলার নতুন বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের কাজ শেষ। আমরা মেলার জন্য প্রস্তুতিও নিয়ে রাখছি। আগামী ১৭ মার্চ আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হবে। সেদিনই মেলাও শুরু হবে।’

উল্লেখ্য, গত ২৫ বছর ধরে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের অস্থায়ী জমিতে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। প্রতি বছর জানুয়ারির ১ তারিখ প্রধানমন্ত্রী এ মেলার উদ্বোধন করেন। এবার পূর্বাচলের বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে বসবে এই মেলা। ২০ একর (৮.১ হেক্টর) জমিতে এই প্রদর্শনী সেন্টার করেছে চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান চায়না স্টেট কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন (সিএসসিইসি)। এটি বাংলাদেশ ও চীনের একটি যৌথ প্রকল্প। ৭৯৬ কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্পের ৬২৫ কোটি টাকা অনুদান হিসেবে দিয়েছে চায়না এইড।

0