আমরা জনপ্রতিনিধিরা অনেকেই অর্থ বিত্তের দিকে ছুটি: আনোয়ার হোসেন

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বলেছেন, অর্থ বিত্ত নিয়ে মানুষ কবরে যেতে পারেনা। আমরা জনপ্রতিনিধির অনেকেই অর্থ বিত্তের দিকে ছুটি। করোনা কিন্তু প্রমান করেছে অনেক শিল্পপতিরাও তা নিয়ে যেতে পারেনি। মসজিদ মন্দির রাস্তা নির্মান করলে তাদের দোয়া সাথে যাবে। শততা নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যেন আমি এই পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে পারি সেজন্য দোয়া করবেন। মানুষের সাথে ছিলাম মানুষের সাথে থাকবো এবং মানুষের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করবো।

বৃহস্পতিবার ( ১৪ জানুয়ারি ) বিকাল সাড়ে ৪টায় ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে শীতলক্ষ্যাস্থ শ্রীশ্রী সত্যনারায়ণ জিউর মন্দির পুনঃ সংস্কার পরিসমাপ্তির উদ্বোধনে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ৪টি বছর পার হয়ে গেল, আমার সময় প্রায় শেষ দিকে। জানিনা কতটুকু কাজ করতে পেরেছি। ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জের মসজিদ মন্দির রাস্তাঘাটের অনেক কাজ আমি করেছি। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রিস্টান একত্রে মিলে আমরা স্বাধীনতা এনেছি আমরা সবাই একসাথে মিলেই বসবাস করবো উন্নয়ন করবো। কোন সাম্প্রদায়িক উস্কানিতে আমরা পা দেবনা। মাদক সন্ত্রাস এ সমাজের বিষফোঁড়া। যুবসমাজ ও সচেতন মানুষের প্রতি আমার আহবান, আজকে আমার নাম বিক্রি করেও অনেকে অপকর্ম করতে পারে, সে সুযোগ দেয়া হবেনা। সমাজের ভালো লোকদের সামনে গিয়ে দিতে চেষ্টা করবেন।

তিনি বলেন, এক সময় দেখতাম এক নেতার এক দেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ বলে তার চারিদিক ঘিরে রাখা হতো। আমাদের মত কর্মীরা তখন কাছে ভিড়তে পারতাম না। কিন্তু ৭৫ এর ১৫ আগস্ট সেই অঘটন ঘটলো। তাই ভয় হয় যখন সবাই আওয়ামীলীগ হয়ে যায়।

শ্রীশ্রী সত্যনারায়ণ জিউর মন্দির কমিটির সভাপতি বাবু নিদেশ রঞ্জন সরকারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী রাজেন্দ্র চন্দ্র দেব মন্টু, সাবেক ট্রাস্টি শ্ৰী পরিতোষ কান্তি সাহা, শহর সমাজ সেবা অধিদপ্তরের সমন্বয় পরিষদের সভাপতি মো. শামসুজ্জামান ভাষানী, বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদেরর মহানগরের সভাপতি শ্রী লিটন চন্দ্র পাল, নাসিক ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. কবির হোসাইন প্রমুখ।

কাউন্সিলর কবির হোসাইন বলেন, এই মন্দিরের সবোচ্চ অর্থ প্রদান করেছেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে যোগ্য চেয়ার আসীন করেছেন। আনোয়ার হোসেন ছোট থেকে মানুষের কল্যাণের কাজ করে যাচ্ছেন। তার মত নেতা নারায়ণগঞ্জে সবোচ্চ স্থানে হওয়া উচিত।

হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি বীর মুক্তিযোদ্ধা শ্রী রাজেন্দ্র চন্দ্র দেব মন্টু বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়নের অর্থদানের পর জেলার পরিষদের চেয়ারম্যান অর্থ প্রদান করার ক্ষমতা রাখেন। আমি হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম শীর্ষ স্থান পেয়েছি মাননীয় রাস্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর কারণে। তাদের ভালবাসা নিয়ে ট্রাস্টের সকল কর্মকান্ডে কাজ করে যাচ্ছি। আনোয়ার হোসেন মত নেতাদের জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দায়িত্ব দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী। কারণ, আনোয়ার হোসেন যোগ্য নেতা, যোগ্য চেয়ারম্যান। তার মন কত বড় তাহা এই মন্দিরের অর্থ প্রদানের প্রমাণ। প্রায় ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে মন্দিরের পুনঃ সংস্কার পরিসমাপ্তি করেছেন জেলা পরিষদ।

0