আমি গর্বিত, না.গঞ্জে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি: ডিসি মোস্তাইন বিল্লাহ

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আমি শিক্ষক পরিবারের সন্তান। আমার বাবা-মা দুজনই শিক্ষক ছিলেন। আমার স্ত্রী, আমার বোন, ভাইয়ের বউ, আমার শ্বশুর শিক্ষক ছিলেন। সেই হিসেবে মানুষ করার কারিগর হিসেবে শিক্ষকদের আমি বিবেচনায় রাখি।

১০ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জ কলেজ’এ আয়োজিত আলোচনা সভায় এ কথা বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) মোস্তাইন বিল্লাহ বিপ্লব।

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন প্রসঙ্গে ডিসি মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, বঙ্গবন্ধু ফিরেছিলেন লন্ডন, ইন্ডিয়া ও কলকাতা হয়ে বাংলাদেশে। তাকে প্রপোজাল দেয়া হয়েছিল, ইরান দিয়ে তুরষ্ক হয়ে ফিরে আসো। ভুট্টু সাহেবের অফার তিনি গ্রহণ করেন নি। বঙ্গবন্ধুর ৪০ থেকে ৪৫ পাউন্ড ওজন কমেছিল। ২৫ শে মার্চ থেকে কারাভোগ করে ৮ জানুয়ারী তিনি মুক্তি পান। জীবনের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ অথবা এক-চতুর্থাংশ কারাগারে কাটিয়েছেন বঙ্গবন্ধু।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক বলেন, দেশটি পেয়েছি বলেই নারায়ণগঞ্জ কলেজ পেয়েছি। আমি গর্বিত এজন্য, নারায়ণগঞ্জের মতো ঐতিহ্যবাহী জায়গায় কাজ করার সুযোগ আমাকে সরকার দিয়েছে। আমি অত্যন্ত গর্বিত এজন্য, নারায়ণগঞ্জ কলেজের মতো জায়গাতে আমি শিক্ষা কার্যক্রমের মধ্যে প্রবেশ করলাম। আমি প্রত্যাশা রাখি এখানে যারা টিচার আছেন, বঙ্গবন্ধুর ন্যায় সেক্রিফাইসের মনমানসিকতা নিয়ে কাজ করবেন। বঙ্গবন্ধুকে তারা যেন জানেন, মুক্তিযুদ্ধকে তারা যেন জানতে পারেন। তাহলে নারায়ণগঞ্জকে এগিয়ে নেয়া যাবে।

ডিসি মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন, যে স্বপ্ন ছিল বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা নির্মাণ, সেটি আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাস্তবায়ন করছেন ভিশন ২০৪০ এর মাধ্যমে। নারায়ণগঞ্জ কলেজকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সংসদ সদস্য অনেক কাজ করেছেন। তার প্রতি আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি। গর্ভনিং বডির যারা আছেন, এবং যারা পাস্ট এবং ফিউচারে কন্ট্রিবিউট করেছেন তাদের আমি স্মরণ করি। আমি প্রত্যাশা রাখি, এখানকার পরিচালনা পর্ষদ এবং টিচারদেরকে নিয়ে, আগামী দিনে একটি গ্রহণযোগ্য, সুন্দর, ইফেকটিভ কলেজ এবং ইনভাইরনমেন্ট আমরা ক্রিয়েট করতে পারবো। আমার উদাত্ত আহ্বান থাকবে আপনারা সহযোগীতা করবেন এবং আমি ফুল কো-অপারেট করার জন্য প্রস্তুত আছি ।

অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফজলুল হক রুমন রেজা, বিকেএমইএ’র সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম, জেলার অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট(শিক্ষা) রেবেকা সুলতানা, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদা বারিক, নারায়ণগঞ্জ বেসরকারি ও ক্লিনিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার মালিক সমিতির সভাপতি ডা. শাহনেওয়াজ চৌধুরীসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

0