আ.লীগপন্থী আইনজীবীদের ঐক্যে মাথা ঘামায় না বিএনপি’র আইনজীবীরা!

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: এজিএম থেকে শুরু করে প্রার্থী চূড়ান্ত করার আগের দিন পর্যন্ত ছিল তিনটি প্যানেল। এতে শুরুর দিকে খোশ মেজাজে ছিল বিএনপিপন্থীরা। কিন্তু শেষ মুর্হুতে পাল্টে গেছে নির্বাচনের সমীকরণ। প্রভাবশালী নেতা শামীম ওসমানের হস্তক্ষেপে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে আওয়ামীপন্থী বিদ্রোহীরা। তাই গত তিনদিন আদালতপাড়ায় একটাই গুঞ্জন; জয়ের দেখা পেতে হলে জাতীয়তাবাদী প্যানেলকে পুড়তে হবে অনেক কাঠ কয়লা। তবে, বিএনপিপন্থীরা বলছেন ভিন্ন কথা। তাদের দাবী, আওয়ামী পন্থীদের ঐক্য নিয়ে মাথা ঘামায় না তারা, নির্বাচনী পরিবেশ সুষ্ঠ হলে জয় ঠেকাতে পারবে না কেউ। বিএনপির কেউ কেউ বলছেন ‘এই ঐক্য লোক দেখানো’।

আগামী ২৯ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচন। ওইদিন বেছে নেওয়া হবে আইনজীবীদের ১৭ অভিভাবক। কিন্তু নির্বাচনী লড়াইয়ে মাঠে নেমেছেন ৩৬ প্রার্থী। নিজেদেরকে যোগ্য প্রমান দিতে চাইছেন ভোট ও দোয়া। এখন নির্বাচনকে ঘিরে দিন যতই ঘনিয়ে আসছে, ততই উত্তপ্ত হচ্ছে আদালতপাড়ার পরিবেশ।

এ ব্যাপারে বিএনপি চেয়ারপার্সন উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আওয়ামী প্যানেলে এই ঐক্য তাদের অন্তর থেকে আসছে কিনা সেটাও বিবেচনার বিষয়। তাদের ঐক্য আন্তরিক কিংবা লোকদেখানো যেমনই হোক; বাংলাদেশে জাতীয়তাবাদী দলে নেতা-কর্মীরা মাথা ঘামায় না। আগামী ২৯ জানুয়ারি জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে এবং আইনজীবীরা বিপুল সমর্থনে বিজয় লাভ করবে।

বিএনপি প্যানেলের সভাপতি পদপ্রার্থী অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবির জানান, আওয়ামীলীগের সৎ সাহস থাকলে দলমত নির্বিশেষে একটি গণতান্ত্রিক সুষ্ঠু পরিবেশে নির্বাচন নিশ্চিত করুক। তারপর দেখা যাবে কাদের ঐক্যে কত জোর! সুষ্ঠু নির্বাচন হলে প্যানেলে ১৭টি পদের একটি পদেও আওয়ামী লীগের ঠাই হবে না।

মহানগর বিএনপির সিনিয়ল সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, বিগত নির্বাচন গুলোতেও আওয়ামীলীগ বাঁকা পথ বেছে নিয়েছে এবং আগামীতেও সেই ষড়যন্ত্র করছে। সৎ সাহস থাকলে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনী পরিবেশের উদ্যোগ গ্রহণ করুক। চাপ মুক্ত ভাবে ভোট দেওয়ার মতো একটি সুষ্ঠু পরিবেশ পেলে বিএনপি প্যানেলের ১৭ জন প্রার্থীই বিপুল ভোটে জয় লাভ করবে।

0