ইউএনও’র উপর ক্ষোভ, সোনারগাঁয়ের জনপ্রতিনিধিদের মাসিক সভা বয়কট

0

স্টাফ করেসপন্ডেট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ : সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খাঁনের বিরুদ্ধে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে খারাপ আচরন, মোবাইলে ধমকি দেওয়া এবং সন্ত্রাসীদের সঙ্গে আঁতাত করে মেঘনা নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণের অভিযোগ উঠেছে।

এসব ঘটনায় এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা, দুই ভাইস চেয়ারম্যান, পৌরসভার মেয়র ও ৮ ইউপি চেয়ারম্যান এবং উপজেলার মাসিক সমন্বয় কমিটির ৪ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্যসহ ১৩ জন সদস্য বৃহস্পতিবার মাসিক সমন্বয় সভায় অংশগ্রহণ করেননি বলে জানা গেছে।

জানা যায়, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খাঁন সোনারগাঁয়ে যোগদানের পরপরই মতার প্রভাব দেখিয়ে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে খারাপ আচরন, মোবাইলে ফোন করে ধমকি দেওয়া এবং সন্ত্রাসীদের সঙ্গে আঁতাত করাসহ মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন সিন্ডিকেটের নিয়ন্ত্রণ করায় উপজেলার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা তার উপর ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন।

এরই সূত্রধরে বৃহস্পতিবার উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভা বয়কট করেছেন পৌরসভার মেয়র ও ৮ জন ইউপি চেয়ারম্যান। এছাড়া সমন্বয় কমিটির ৪ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্যসহ ১৫ জন সদস্যের মধ্য হতে ১৩ জন সদস্যই সভায় অংশগ্রহণ করেননি। তাছাড়া উপজেলার ২ জন ভাইস চেয়ারম্যান এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকাও উক্ত সভা বয়কট করেন।

ক্ষুব্ধ জনপ্রতিনিধিদের অভিযোগ, নির্বাহী অফিসার রাকিবুর রহমান খাঁন উপজেলার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের গণহারে দেখে নেওয়ার হুমকী-ধামকী প্রদান করেন। তাঁর অনৈতিক কর্মকান্ডে সোনারগাঁয়ের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিগণ বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে। এনিয়ে উপজেলা জুড়ে রাজনৈতিক উত্তেজনা ও জন অসন্তোষ সৃষ্টির সম্ভাবনা তৈরী হয়েছে। তাই উপজেলার নির্বাচিত ১৪৪ জন প্রতিনিধি তার প্রত্যাহার কামনা করেন।

এদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাকিবুর রহমান খাঁনকে ম্যানেজ করে বালু সন্ত্রাসীরা মেঘনা নদী হতে প্রকাশ্যে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন চালু রেখেছে বলেও এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েছে। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে সোনারগাঁয়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, চাঁদাবাজ ও ১১ মামলার পলাতক আসামী রিয়াদ হোসেন রনিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে দেখা গেছে। এনিয়ে জনসাধারনের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রকিবুর রহমান খাঁন জানান, যে সকল জনপ্রতিনিধিরা সমন্বয় কমিটির সভা বর্জন করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি জনপ্রতিনিধিদের অভিযোগ সত্য নয় বলে দাবি করেন।

0