ইউরোপ পাঠানোর নামে টাকা আত্মসাৎ, ১ জনকে রিমান্ডে

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লায় ইউরোপ পাঠানোর লোভ দেখিয়ে ২১ লাখ ১৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অপরাধে একজনকে ৩ দিনের রিমান্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত।
রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামির বর্তমান ঠিকানা হলো- ফতুল্লা নূর হাজী সাহেবের বাড়ীর ভাড়াটিয়া হোছেন আলীর ছেলে মো. নূরুজ্জামান খান (৩৪)।
বুধবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে আসামিকে ৭ দিনের রিমান্ডে চেয়ে আদালতে উঠায় পুলিশ। পরে শুনানি শেষে অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমার দত্ত এর আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে অত্র এলাকা থেকে মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায় যে, বাদী মো. আজিজুল ইসলাম সহ ৭ জন ব্যক্তির নিকট থেকে ইউরোপ পাঠানোর লোভ দেখিয়ে নগদ, চেক ও বিকাশের মাধ্যমে সর্বমোট ২১ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা আসামিসহ তার অপরাপর আসামিরা আত্মসাৎ করেছে।
প্রাথমিক তদন্তে যানা যায়, বাদী মো. আজিজুল ইসলাম নিকট থেকে ১১ লাখ ৫০ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে। এছাড়াও মো. আবুল কালাম নামক এক ব্যক্তির থেকে ৩ লাখ টাকা, আল আমিনের কাছ থেকে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা, আব্দুল্লাহ এর নিকট থেকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা, শ্যামল সরকার এর নিকট থেকে ১ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা, মো. ফারুক এর নিকট থেকে ১ লক্ষ টাকা, বশির এর নিকট থেকে ৫০ হাজার টাকা ও মনির এর নিকট থেকে ৯০ হাজার টাকা। ৮ জনের নিকট থেকে সর্বমোট ২১ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে আসামি সহ অপরাপর অজ্ঞাতনামা আসামিরা।
প্রাথমিক তদন্তে আরো জানা যায়, আসামিরা প্রতারক চক্রের সদস্য। বিভিন্ন লোকজনকে ইউরোপে ভাল বেতনের চাকুরীর লোভ দেখিয়ে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। উক্ত আসামি ও অপরাপরা আসামিরা তাদের নিকট থেকে টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিয়ে বিভিন্ন তালবাহানা শুরু করে। গত ১ মাস পূর্বে বর্ণিত ভাড়াটিয়া বাসা তালা দিয়ে পালিয়ে যায়। তাদের অনেক খোঁজাখুজি করেও পাওয়া যায় নি। তাদের ব্যবহারকৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া গেছে।
এবিষয়ে কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান বলেন, আসামিরা প্রত্যারণা চক্রের সদস্য। অসহায় মানুষদের আত্মসাৎকৃত অর্থ উদ্ধার ও মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে অপরাপর আসামিদের নাম-ঠিকানা সংগ্রহ ও গ্রেপ্তারের লক্ষ্যে বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে আসামিকে ৩ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

0