ইতালী ফেরত আত্মীয়কে দেখতে গিয়ে আক্রান্ত হন বন্দরের ওই নারী!

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হওয়া ওই নারী কখনই দেশের বাইরে যাননি। তাদের বাড়ির কেউ বিদেশ ফেরতও নন। তিনি কি ভাবে করোনা আক্রান্ত হলেন? এ ব্যাপারটি সবাইকে ভাবিয়ে তুলেছে। তবে, এলাকার একটি সূত্র জানিয়েছেন, ‘সম্প্রতি ওই নারী ইতালী ফেরত এক আত্মীয়কে (ভাইয়ের স্ত্রী) দেখতে ঢাকায় গিয়ে ছিলেন। সেখানে অবস্থানও করে ছিলেন বেশ কয়েক দিন। ফেরার কয়েক দিন পরই তিনি অসুস্থ হয়েছেন।’

শুক্রবার (৩ এপ্রিল) বন্দরের রসুলবাগ এলাকা এক ব্যক্তি এ তথ্য জানান। তবে তার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই ব্যক্তির এ বিবরণ পৃথক সূত্র থেকে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।

গত ২৯ মার্চ সন্ধ্যায় বন্দর উপজেলার রসুলবাগের বাসিন্দা শিউলী নামের এক নারী তার বাবার বাড়ি পাইকপাড়ায় অবস্থান কালে শ্বাসকষ্ট ও জ্বর নিয়ে চিকিৎসার জন্য শহরের মন্ডলপাড়ায় অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আসেন। এ সময় ওই নারীকে প্রাথমিক চিকিৎসা হিসেবে নেবুলাইজ ও এক্স-রে ও রক্ত পরীক্ষা করা হয়। রির্পোট দেখে করোনাভাইরাস সন্দেহ হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। হাপাতালের অ্যাম্বুলেন্সে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাপাতালে নেওয়া হয়। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে কুর্মিটোলা হাসাপাতলে পাঠায় তাকে। কিন্তু পরিবারের লোকজন তাকে বন্দরের বাড়িতে নিয়ে আসে।

পরদিন ৩০ মার্চ ওই নারী আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। কুর্মিটোলা হাসপাতাল ওই নারীর নমুনা সংগ্রহ করে রাখে। গত ২ এপ্রিল আইইডিসিআর থেকে পরীক্ষার রির্পোট করোনাভাইরাস পজেটিভ আসলে বন্দরের শতাধিক পরিবারকে লকডাউনে রাখা হয়।

এদিকে, ওই নারীর চিকিৎসায় নিয়োজিত চিকিৎসক, নার্স, অ্যাম্বুলেন্স চালক ও মৃতের স্বজনসহ ১৫ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে নির্দেশ দিয়েছে জেলা সিভিল সার্জন।

0