ঈদের দিন নারীকে উত্যক্ত, বাধা দিয়ে প্রাণ হারালো মাঝি

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নৌকায় উঠে নারীকে উত্যক্ত করে ৪/৫ জন যুবক। মাঝ নদীতে নৌকার ইঞ্জিন বন্ধ করতে রশি ধরে টানাটানি। এতে বাধা দিলে হত্যা করা হয় নৌকার মাঝিকে। আহত করা হয় আরও ৩ যাত্রীকে।

ঈদের দিন (সোমবার) বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের তাজ জুট মিল এলাকায় নদীর ঘাটে  এ ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে স্থানীয়রা দুই যুবককে আটক করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ ও র‌্যাব-১১ এর হাতে তুলে দিয়েছে।

নিহত ইঞ্জিন চালিত নৌকার মাঝির নাম শাহাদত। সে রূপগঞ্জ থানার টাটকি যাত্রামুড়া এলাকার তোফাজ্জল হোসেনর ছেলে। আর আটককৃতদের নাম আতাউর ও হাসান। তারা সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর সেনপাড়া এলাকার সাইদুল ও সাইদুরের ছেলে।

নিহত ইঞ্জিন চালিত নৌকার মাঝি শাহাদত

আহত নুর আলম জানান, শীতলক্ষ্যা নদীর সোনারগাঁয়ের কাঁচপুর সেনপাড়া ঘাট থেকে কয়েকজন নারী পুরুষ ও যুবক নদী পারাপারের জন্য নৌকায় উঠে। এ সময় চলন্ত নৌকায় ৪/৫ যুবক এক নারীকে উত্যক্ত ও তার গলায় থাকা চেইন ছিনিয়ে নিতে চেষ্টা করে। নৌকার ইঞ্জিন বন্ধ করতে রশি ধরেও টানাটানি করে। এতে বাধা দিলে তাদের সাথে বাকবিতন্ডা হয় নৌকায় অবস্থিত যাত্রী ও মাঝির সাথে। এরই মধ্যে নৌকা সিদ্ধিরগঞ্জের তাজ জুট মিল এলাকায় নদীর ঘাটে ভিড়লে তাদের উপর বাশ, কাঠ ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায় ওই যুকবরা।
এতে নদীর পারের লোকজন বাধা দেয়। একপর্যায়ে আরেকটি নৌকায় আরও কয়েকজন যুবক এসে যোগ দিয়ে একসাথে হামলা চালায়। এ সময় তারাও লাঠি, কাঠ ও বাশ দিয়ে এলোপাথারি মারধর করতে থাকলে শাহাদাতের মাথায় ও চোখে আঘাত লাগলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। এবং নৌকায় থাকায় আরো তিন ভাই নুর আলমসহ আলী আজগর ও নুর নবী আহত হয়। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠালে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার শাহাদাতকে মৃত ঘোষণা করেন।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আজিজুল জানান, এ ঘটনায় দুইজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। আইনগত ব্যবস্থা পক্রিয়াধীন রয়েছে।

0