ঈদে না.গঞ্জ স্বাস্থ্য বিভাগের ৫‌টি পরামর্শ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: অনলাইন গরুর হাটকে সবচেয়ে বেশি প্রাদান্য দিচ্ছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। একই সাথে ঈদের ছুটিতে গার্মেন্টস ও অন্যান্য কলকারখানার কর্মীদের গ্রামের বাড়িতে না যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ঈদকে সামনে রেখে শনিবার (১১ জুলাই) জেলা কোভিড-১৯ কমিটি ও চিকিৎসকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এমন ৫টি পরামর্শ তুলে ধরা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র (বিটিএটিসি) (এনডিসি) রেক্টর মো. রাকিব হোসেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো. জসিম উদ্দিন এবং এই কমিটির সদস্য সচিব জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ , পুলিশ সুপার মো. জায়েদ আলম, জেলা করোনা সংক্রান্ত ফোকাল পার্সন ও সদর উপজেলার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম ।

স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে জেলা করোনা সংক্রান্ত ফোকাল পার্সন ও সদর উপজেলার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম প্রস্তুব গুলো তুলে ধরেন।

১/ অনলাইনে গরুর হাটের ব্যবস্থা করা গেলে সবচেয়ে ভালো হতো। রাস্তা-চীপা গলিতে গরুর হাট করা যাবে না। খোলা মাঠে পর্যাপ্ত খোলা-মেলা অবস্থায় হাট করতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি বিশেষ করে মাস্ক পরা ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়কে মাস্ক পড়তে হবে।

২/ নারায়ণগঞ্জ এখন আর হটস্পট নেই। কিন্তু অন্য জেলা গুলো এখনও হটস্পটে পরিনত হচ্ছে। তাই ঈদের ছুটিতে গার্মেন্টস ও অন্যান্য কলকারখানার কর্মীদের গ্রামের বাড়িতে যাওয়া থেকে বিরত থাকতে হবে।

৩/ অন্য জেলা থেকে জ্বর কাশি থাকলে নারায়ণগঞ্জে ভ্রমণ বা ব্যবসায়ীক কাজে না আসতে অনুরোধ করেন নারায়ণগঞ্জ জেলার ফোকাল পার্সন। সেই সাথে নারায়ণগঞ্জবাসীকে অনুরোধ করেন বিনা প্রয়োজনে অন্য জেলায় (এখনও যেখানে সংক্রমিত বেশী) ভ্রমন না করতে।

৪/ চিকিৎসকদের নিরাপত্তা যে কোন উপায়ে নিশ্চিতের দাবি জানান।

৫/ স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ জামাতের পরামর্শদেন।

0