এনজিও কর্মীকে হত্যা, সাক্ষীর জবানবন্দি রেকর্ড

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: এনজিও কর্মী মো. সাজিদুর রহমানকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে লাশ ঘটনাস্থলে রেখে রক্তমাখা জামা-কাপড় পরিহিত অবস্থায় ওই পালিয়ে যায় আসামি শারমিন আক্তার। আজ বিজ্ঞ আদালতে ঘটনার এমন ওই বিবরণ দিলেন সাক্ষী মোহাম্মদ আলী।

নিহত সাজিদুর রহমান টাঙ্গাইল জেলার সদর উপজেলার মীরপুর গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো.কাউসার আলমের আদালতে ১৬৪ ধারা মতে তার জবানবন্দী দেন। এর আগে তার জবানবন্দী ১৬১ ধারা মতে আলাদা কাগজে লিপিবদ্ধ করা হয়।

সাক্ষী মোহাম্মদ আলী (৬৫) হলেন- সোনারগাঁও থানার ছনপাড়া এলাকার মৃত. আফির উদ্দিন এর ছেলে।

উল্লেখ্য, গত ৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে উপজেলার বারদী ইউনিয়নের মিস্ত্রীপাড়া গ্রামে এই হত্যাকান্ড ঘটে। পরবর্তীতে ক্রাইম সিনের সদস্যরা মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে মরদেহ প্রেরণ করে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বারদী ইউনিয়নের মিস্ত্রীপাড়া এলাকার শামসুদ্দিনের ছেলে হান্নানের স্ত্রী শারমিন আক্তার ‘ব্যুরো বাংলাদেশ’ নামের একটি এনজিও বারদী শাখা থেকে ৫০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহণ করেন প্রতি সপ্তাহে ১২৫০ টাকা করে পরিশোধের শর্তে। ৬ সেপ্টেম্বর দেড়টার সময় ওই কিস্তির টাকা আদায় করতে ব্যুরো বাংলাদেশ এনজিওর প্রোগ্রাম অর্গানাইজার মো. সাজিদুর রহমান মো. হান্নানের বাড়িতে যান।

পরে বাদী মো. শামীম মিয়াকে কে বা কারা ফোন করে বলে যে, এনজিওর প্রোগ্রাম অর্গানাইজার মো. সাজিদুর রহমানকে হত্যা করে লাশ মো. হান্নানের ঘরের খাটের উপরে ফেলে রেখেছে। তারপর তাৎক্ষিনিক ঘটনাস্থলে পৌছে দেখে ভিকটির গলাকাটা লাশ পরে রয়েছে।

বাদী এজাহারে আরও উল্লেখ্য করেন যে, ভিকটিম মৃত্যুর কিছুক্ষন আগে তাকে ফোন দিয়ে জানিয়েছে যে, শারমিন ও তার স্বামী মো. হান্নান অনিয়মিতভাবে কিস্তি পরিশোধ করছে। তাদের নিকট কিস্তির টাকা চাইলে সে ও তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিতো।

এরপর ঘটনাস্থলের লোকজন জানায়, আসামি মো. হান্নান (২৭), ফয়সাল (২৪), শারমিন (২৩) পৌনে ২ টার সময় রক্তমাখা জামা কাপড় পরিহিত অবস্থায় বাড়ি থেকে পালিয়ে যাচ্ছে। পরে স্থানীয় মেম্বার দাইয়ান (৪২) এর মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে উপস্থিত হয়ে সিআইডি, ক্রাইম সিনকে সংবাদ দিলে তারা ঘটনা স্থলে পৌছিয়ে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করে ও বিভিন্ন আলামত উদ্ধার করে।

0