এনসিসি’তে একদিনে ৭ জনের করোনা উপসর্গে মৃত্যু, ২ জনের স্বাভাবিক দাফন

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে দুই ব্যক্তি মারা যাওয়ার পর সাধারণ নিয়মে দাফন করা হয়েছে। সংরক্ষণ করা হয়নি নমুনাও।

বুধবার (৮ এপ্রিল) নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোশন এলাকার এ ঘটনা ঘটে। তাদের একজনের বাড়ি নগরীর ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের জামতলা এলাকায়। অন্যজন ১২ নং ওয়ার্ডের খানপুর এলাকার বাসিন্দা।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও এনসিসির স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শেখ মোস্তফা আলী জানান, ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের ৭০ বছর বয়সী ওই ব্যাক্তির পরিবারের লোকজন জানায় যে- করোনাভাইরাসের উপসর্গ জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে গত পাঁচদিন ধরে ওই লোক অসুস্থ ছিলেন। তাই সকালে তিনি মারা যাওবার পর পরিবারের কেউ আতঙ্কে লাশের কাছে যাচ্ছিল না। পরে সিটি করপোরেশন ও প্রশাসনের সহযোগীতায় করোভাইরাসে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের দাফনের নিয়ম মেনে মাসদাইরে সিটি করপোরেশনের কেন্দ্রীয় কবরস্থানে ওই ব্যক্তিকে দাফন করা হয়।

অন্যদিকে, ১২নং ওয়ার্ডে খানপুর এলাকার বাসিন্দা সালাম নামে এক ব্যক্তি করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে। লাশটি পরবর্তীতে স্থানীয় কাউন্সিলর শওকত হাসেম শকুর উপস্থিতিতে পারিবারিকভাবে দাফন করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, ক‌রোনাভাইরাস জ‌নিত ও উপস‌র্গে শুধুমাত্র এনসিসি’র অধীনের অঞ্চলে ১৮ ঘন্টায় আরও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বেলা সোয়া ১১টায় মৃত্যু হয়েছে ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৯ নং ওয়ার্ডের মজিবুর রহমান প্রধান নামের এক ব্যক্তির। দুপুরের পর নারায়নগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৫নং ওয়ার্ডের শাহ আলম নামে আরও একজন দিনমজুরের মৃত্যু হয়েছে। বিকালে বন্দর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নুরুল ইসলাম বরণ করেন। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড এলাকায় চন্দন মালাকার নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ও এনসিসির স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শেখ মোস্তফা আলী জানান, তাদের সকলেই করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া ৭ এপ্রিল দিবাগত রাত ১২টায় নারায়ণগঞ্জ ৩০০শয্যা বিশিষ্ট খানপুর হাসপাতালে অজ্ঞাত এক ব্যক্তির মৃত দেহ পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে ওই ব্যক্তির মধ্যেও করোনার উপসর্গ ছিলো।

0