এমপির দেয়া শাড়ি গায়ে র‌্যালীতে মন্ত্রী!

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশনের প্রাঙ্গনটি লাল সবুজের মুগ্ধকর দৃশ্য সকলের নজর কেড়ে নিল। প্রায় আড়াই শ রমনীর গায়ে একই রঙের একই ডিজাইনের শাড়ি। তাদের মধ্যে রয়েছেন মন্ত্রীও।

২৮ এপ্রিল রোববার সকালে এক র‌্যালির এ দৃশ্য ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদের‌ উপহার দেয়া শাড়ি গায়ে র‌্যালীতে অংশ নেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান সহ অন্যান্যরা।

জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা দিবসে উপলক্ষ্যে র‌্যালী। ২৮ এপ্রিল রোববার সকালে ঢাকায় রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশনে উত্তম চর্চা-২০১৯ পুরষ্কার প্রদান অনুষ্ঠানের পূর্বে উক্ত র‌্যালিটি অনুষ্ঠিত হয়।

র‌্যালী শেষে পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে। যেখানে উত্তম চর্চা পুরষ্কার পেয়েছে বিকেএমইএ’র সদস্যভুক্ত পাঁচ কারখানা। শ্রম মন্ত্রণালয় কর্তৃক শিল্প কারখানায় উত্তম চর্চা যাচাইয়ের মাপকাঠিতে পয়েন্টপ্রাপ্তির ক্রমানুসারে বিকেএমইএ’র সাবেক সভাপতি ফজলুল হকের প্লামি ফ্যাশনস, বিকেএমইএ সভাপতি একেএম সেলিম ওসমান, এমপির মালিকানাধীন উইজডম অ্যাটেয়ার্স লি., তৃতীয় সহ-সভাপতি গওহার সিরাজ জামিলের নাফিসা অ্যাপারেলস, প্রথম সহ-সভাপতি মনসুর আহমেদের মাদার কালার লি. এবং দ্বিতীয় সহ-সভাপতি ফজলে শামীম এহসানের ফতুল্লাহ অ্যাপারেলস এই পুরস্কারে ভূষিত হয়।

রাজধানীর কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশনে আয়োজিত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এই পুরষ্কার তুলে দেন। শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব উম্মুল হাছনা।

শিল্প কারখানার মালিক-শ্রমিকদের মধ্যে পেশাগত স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বিষয়ক সচেতনতা এবং উৎসাহ বৃদ্ধিতে গত বছর ২৮ এপ্রিল ‘জাতীয় পেশাগত স্বাস্থ্য ও সেইফটি দিবসে’ এই পুরস্কার প্রবর্তিত হয়। বিকেএমইএ’র সদস্যভুক্ত পাঁচ কারখানা ছাড়াও এ বছর পোশাক খাতে আরো সাতটি ওভেনওয়্যার প্রতিষ্ঠান এই পুরস্কার পায়।

নিয়ম অনুযায়ী কারখানার উত্তম চর্চা যাচাইয়ের জন্য মন্ত্রণালয় থেকে একটি প্রশ্নমালা খাতভিত্তিক সংগঠনগুলোকে পাঠানো হয় যা শ্রম আইনের আলোকে প্রনয়ন করা হয়। সংগঠনগুলো সেই প্রশ্নমালার উত্তর চায় কারখানাগুলোর কাছে। কারখানা কর্তৃপক্ষের প্রদত্ত উত্তরগুলো মন্ত্রণালয়ে পাঠায় সংগঠনগুলো। এরপর মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট পর্ষদ সেগুলো যাচাই-বাছাইয়ের পর চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়।

পুরস্কার প্রদানের ক্ষেত্রে নির্ধারিত কর্মঘণ্টা, পরিচ্ছন্ন ও স্বাস্থ্যসম্মত কর্ম পরিবেশ, নারী শ্রমিকদের মাতৃত্তকালীন ছুটি ও অন্যান্য সুবিধা প্রদান, শ্রমিকের চাকরি ছেদজনিত পাওনা পরিশোধ, শারিরীক মানসিক বা যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের কার্যকর ব্যবস্থা, স্বাস্থ্য সুবিধা, কারখানায় সেইফটি কমিটি, সার্বিক নিরাপত্তাসহ বিভিন্ন বিষয় প্রাধান্য পায়।

0