কঠোর অবস্থানে প্রশাসন, তবু সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা নেই

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: গা ঘেষেঁ ঘেষেঁ দাঁড়িয়ে দীর্ঘ অপেক্ষ। একজন লোক দাঁড়িয়ে বার বার নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখার কথা বললেও কেউ তা মানছেন না। কারণ, আগে কে টাকা নিবে; সেটাই তাদের মূল লক্ষ।

সোমবার (৬ এপ্রিল) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এ চিত্র দেখা গেছে শহরের করিম সুপার মার্কেটের সামনের একটি ব্যাংকে। গত মার্চ মাসের কাজের বেতন ব্যাংক থেকে তুলতে গার্মেন্টর্স কর্মীদের মধ্যে সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কাই দেখা যায়নি।

আল-আমিন নামের এক ব্যক্তি বলেন, আমি সচেতন। কিন্তু বেতনও উঠাতে নিতে হবে। প্রায় এক ঘন্টা এ পরিস্থিতি দেখে অবশেষে নিজেই বাধ্য হয়ে লাইনে দাঁড়িয়েছি।

পরীক্ষার আওতা বাড়ার পর নারায়ণগঞ্জে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে; সবশেষ ৬ এপ্রিল একদিনে নতুন ১২ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের।

গত রোববার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীও গোটা সিটি করপোরেশন এলাকা ও সদর উপজেলা লকডাউন করতে প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্ট মহলের কাছে চিঠি দিয়েছেন। আইভী তার সিটিতে কারফিউ জারির দাবির পর কড়া অবস্থান নিয়েছে প্রশাসন। এ পরিস্থিতিতে করণীয় নিয়ে রোববার রাতে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলনে কক্ষে জরুরি সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এদিকে, সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৬ এপ্রিল নগরীর প্রধান সড়ক গুলোতে কেউ নামলে নিয়ে আসা হচ্ছে জিজ্ঞাসাবাদের আওতায়। কারো কারো বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নিয়েছে প্রশাসন।

এর আগেও গত ২৬ মার্চ থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন থেকে মানুষকে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য নানা প্রদক্ষেপ নিতে দেখা গেছে।

0