করোনা কালে না.গঞ্জ কারাগারে যে ভাবে কাটবে ঈদ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ক্রমেই নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে নারায়ণগঞ্জের কারাগারে। এ পর্যন্ত করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ১৩ জন কারারক্ষীর।

এ পরিস্থিতিতে আসন্ন ঈদুল ফিতরে বন্দিদের সঙ্গে স্বজনদের সাক্ষাৎ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে কারা কর্তৃপক্ষ। এমনকি করোনা সংক্রমণ এড়াতে ঈদের দিন বন্দিদের বাড়ি থেকে রান্না করা খাবার পাঠানোর যে প্রথা প্রচলিত আছে, সেটিও এবার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ।

কারাগারারের জেল সুপার সুভাষ কুমার ঘোষ জানান, ঈদকে কেন্দ্র করে আমরা প্রতি বছর বন্দিদের সঙ্গে আত্মীয়দের বিশেষ সাক্ষাতের সুযোগ ও তাদের রান্না করা খাবার বন্দিদের দিয়ে থাকি। এবার সেটি থেকে আমরা বিরত থাকছি। তবে ঈদে টেলফোনের মাধ্যমে কারাগারের নির্ধারিত বুথ থেকে স্বজনদের সাথে কথা বলতে পারবেন বন্দিরা। আর সরকারের তরফ থেকে ঈদে উন্নত মানের খাবারের ব্যবস্থা করা হবে।

তাই এবার বন্দিদের সাথে কারো সাক্ষাতের কোন সুযোগ থাকছেনা। প্রতি বছর তিন দিনব্যাপী খেলাধুলা, গান বাজনার বিশেষ আয়োজন থাকলেও এবার তা হবেনা। ঈদের দিন সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে প্রতিটি ভবনের বন্দি ব্যারাকের মধ্যে শুধুমাত্র ওই ভবনের বন্দিদের ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এরপর সকালে মুড়ি পায়েস, দুপুরে পোলাও, মাংস, মুরগীর রোস্ট, কোল্ড ড্রিংকস ও পান সুপারি দেয়া হবে। সন্ধ্যায় দেয়া হবে ভাত মাছ ও সবজি।

জেল সুপার আরও জানান, এ বছর করোনা সংক্রামণের ঝুঁকি থাকায় এ ধরনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কারাগারে এখন বন্দি সংখ্যা প্রায় ১৭০০। এ ছাড়া কারাগারে কর্মরত কারারক্ষীসহ প্রায় ৩০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছেন। তাই বিশেষ সতর্কতার অংশ হিসেবেই বন্দি সাক্ষাৎ বন্ধ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ১৭ মে নারায়ণগঞ্জ কারাগারে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। ১৮ মে ৬ জন, এরপর ৪ ও সর্বশেষ আজ আরও ২ জন কারারক্ষীর শরীরে করোনা পজেটিভ আসে।

0