‘করোনা পরীক্ষায় ফি ২০০ ও ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা অমানবিক’

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনা টেস্ট ফি বাতিল ও স্বাস্থ্যখাতে লুটপাট ও চরম অব্যবস্থাপনা এবং সীমান্তে নির্বিচারে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন।

শনিবার (৪ জুলাই) সকাল ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মানববন্ধনটিতে সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সভাপতি এম. শফিকুল ইসলাম।

মানববন্ধনের সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ মেহেদী হাসান উক্ত মানববন্ধনটির।

সে সময়  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সেক্রেটারী সুলতান মাহমুদ ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক মুহাম্মাদ ওমর ফারুক।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সুলতান মাহমুদ বলেন, প্রতিটি নাগরিকের ৫টি মৌলিক অধিকার রয়েছে। যেমন-খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসা। এর মধ্যে চিকিৎসা একটি শুরুত্বপূর্ণ মৌলিক অধিকার। স্বাধীনতার ৪৯ বছর পরে এসেও এই করোনা মহামারীর মধ্যেও আমাদের মৌলিক অধিকারের জন্য আমাদের রাজপথে আন্দোলন, সংগ্রাম করতে হয়। এটা বড়ই দু:খ ও পরিতাপের বিষয়ক। অবৈধ ও ভোটবিহীন সরকারের মনে রাখতে হবে সরকারের টাকায় জনগণ চলে না জনগণের ট্যাক্সের টাকায় সরকার চলে। অতএব প্রতিটি নাগরিকের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব। আর তা যদি নিশ্চিত করতে না পারে তবে এই ব্যর্থতা নিয়ে সরকারের ক্ষমতায় থাকার কোন অধিকার নেই। স্বাস্থ্যখাতে চরম লুটপাট সহ সরকারের চরম দুর্নীতি এখন সীমাহীন পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে। অতএব আর্দশবান ছাত্র সমাজকে দুর্নীতি, অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে ও ন্যায় প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে শরীক থেকে দেশ ও জাতিকে দুর্নীতিমুক্ত করতে হবে। করোনা বিপর্যয়ে দেশের অধিকাংশ মানুষ অর্থনৈতিক দৈন্যতার মধ্যে মহা আতংকে দিনাতিপাত করছে। এমতাবস্থায় করোনা নমুনা পরীক্ষায় সরকারী ভাবে ২০০ ও ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা সম্পূর্ণ অমানবিক। এমন অমানবিক, সংবিধান ও জনবিরোধী সিদ্ধান্ত তন্ত্র নিন্দা জানাচ্ছি ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তিনি আরও বলেন- বাংলাদেশে ইতিমধ্যে করোনা আক্রান্ত সংখ্যায় প্রথম বিশ দেশের তালিকায় প্রবেশ করেছে। তাই অনতিবিলম্বে সংবিধান ও জনবিরোধী সিদ্ধান্ত বাতিল করে বিনামূল্যে করোনা টেস্ট উম্মুক্ত করার দাবী করছি। নাগরিকের চিকিৎসা সেবা বিনা শর্তে রাষ্ট্রকেই বহন করার দাবী জানাচ্ছি। তাই অতি দ্রুত স্বাস্থ্য খাতকে গতিশীল করতে ব্যর্থ ও অযোগ্য স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে পদত্যাগ করতে হবে। নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে সীমান্তে বার বার বিচার বহির্ভূত হতাকান্ডের ঘটনা ঘটছে। হত্যাকান্ড বন্ধে সরকার বার বার ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে সরকারের রহস্যজনক নিরবতা দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব হুমকির মুখে ফেলে দিচ্ছে। বিএসএফ কর্তৃক সীমান্তে বাংলাদেশের নাগরিক হত্যাকান্ডে বন্ধে সেনা মোতায়েনের দাবী জানান।

সভাপতি এম. শফিকুল ইসলাম বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে সরকার যে সকল পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে তা এক শ্রেণির দুর্নীতিগ্রস্থ কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিদের কারণে তা বাস্তবায়ন করতে সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। এই করোনা মহামারী নিয়ন্ত্রণে সরকারের পরিকল্পনা যথাযথ বাস্তবায়ন না হওয়ায় সরকারী চাকুরীজীবী ছাড়া বাকি ৮৫ শতাংশ মানুষ তাদের জীবন যাত্রার নিশ্চয়তা পাচ্ছে না। স্বাস্থ্যখাতের সকল বরাদ্দ একদল চাটুকাররা ভাগ বাটোয়ারা করে চুরির মহোৎসবে মেতে উঠেছে। বিভিন্ন হাসপাতাল ও চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোতে মানব সেবার পরিবর্তে করছে অবহেলা, অসৌজন্যমূলক আচরণ ও হয়রানী। করোনা রোগী ছাড়াও সাধারণ রোগীদেরকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে না। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গাফোলতির কারণে এমনটি হচ্ছে। তাই অতি দ্রুত অযোগ্য, ব্যর্থ ও মানবতার শত্রু স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবী করছি।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ মহানগর ইসলামী যুব আন্দোলনের সভাপতি যুবনেতা গিয়াসুদ্দিন মুহাম্মাদ খালিদ, ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন, সেক্রেটারী মুহাম্মদ মোস্তফা তালুকদার, নারায়ণগঞ্জ ইশা ছাত্র আন্দোলনের সহ-সভাপতি আহমাদ কবির, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুহাম্মাদ ওমর ফারুক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ মুহাম্মাদ ইকবাল হোসাইন, অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ শরীফ হাসান, দফতর সম্পাদক এইচ.এম শাহীন আদনান, কলেজ সম্পাদক মুহাম্মাদ সোহেল হোসাইন, স্কুল সম্পাদক এম.এম জাহিদুল ইসলাম, ছাত্র কল্যাণ সম্পাদক মুহাম্মাদ মিজানুব রহমান, সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মুহাম্মদ তারেক হাসান, সদস্য মুহাম্মাদ ইফতি আলম সহ বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ডের দায়িত্বশীলবৃন্দরা।

0