কিশোরের কানে ইয়ারফোন থাকায়…

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ট্রেনে কাটা পড়ে সোনারগাঁয়ের গোবিন্দ চন্দ্র দাস (১৬) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। কানে ইয়ারফোন লাগানো অবস্থায় টেনে কাটা পড়ে সে। পুলিশের ধারণা, কানে ইয়ারফোন গুঁজে গান শোনার কারণে ট্রেনের হুইসল শুনতে পায়নি গোবিন্দ।

শুক্রবার সকালে সাড়ে আটটার দিকে নরসিংদী শহরের পুরানপাড়া এলাকা থেকে কিশোর গোবিন্দের খণ্ডিত লাশ উদ্ধার করে রেলওয়ে পুলিশ। ঘটনাস্থল নরসিংদী রেলস্টেশন থেকে চার কিলোমিটার দূরে।

নিহত গোবিন্দ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের বারদী গ্রামের বলাই চন্দ্র দাসের ছেলে। সে বারদী এলাকার একটি স্বর্ণকারের দোকানে তিন মাস ধরে কাজ করছিল।

নিহত কিশোরের স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ির কাউকে না জানিয়ে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের বারদী গ্রাম থেকে নরসিংদী শহরে আসে গোবিন্দ। রাত ১১টা বাজলেও বাড়িতে না ফেরায় তাঁর মুঠোফোনে কল দিয়ে বন্ধ পান পরিবারের সদস্যরা। অনেক খোঁজাখুঁজি করা হলেও তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। আজ সকাল সাড়ে আটটার দিকে রেললাইনে লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন খবর দিলে রেলওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

রেলওয়ে পুলিশ বলছে, রাতের কোনো এক সময় ট্রেনের নিচে কাটা পড়েছে গোবিন্দ। ঘটনাস্থলে একটি ভেঙে যাওয়া মোবাইল ফোন ও মৃতদেহের কানে ইয়ারফোন দেখতে পাওয়া গেছে। ওই মোবাইল ফোনের সিম অন্য মোবাইল ফোনে ব্যবহার করে একাধিক নম্বরে কল দিয়ে কিশোরের পরিচয়ের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। দুপুরে পরিবারের লোকজন গোবিন্দের লাশ শনাক্ত করেছেন।

নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আহমেদ বলেন, কানে ইয়ারফোন থাকায় ধারণা করা হচ্ছে, ট্রেনের শব্দ বা হুইসল ওই কিশোর শুনতে পায়নি। ময়নাতদন্ত শেষে গোবিন্দের লাশ পরিবারের লোকজনের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

0