গৃহকর্মীকে গণধর্ষণের ঘটনায় বাড়িওয়ালা রিমান্ডে

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সোনারগাঁ উপজেলায় কাজের কথা বলে এক গৃহকর্মীকে মোবাইল ফোনে বাসায় ডেকে এনে গণধর্ষণের ঘটনায় বাড়ি হাবিবুরকে ২ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।

রোববার (৩ নভেম্বর) সকালে আসামিকে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে উঠায় পুলিশ। পরে শুনানি শেয়ে চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আহাম্মদ হুমায়ন কবির এর আদালত এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডপ্রাপ্ত আসামি হলো- বাগবাড়ীয়া এলাকার মৃত. আ. সোবাহান এর ছেলে মো. হাবিবুর রহমান (৪০)।

গত সোমবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটলে ওই গৃহকর্মী মঙ্গলবার রাতে বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় ৪ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। মামলার পর রাতেই দুই ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মামলার এজাহারভুক্ত আসামিরা হলেন, সোনারগাঁ উপজেলার বাগবাড়িয়া এলাকার মৃত সোবহান মিয়ার ছেলে হাবিবুর, একই এলাকার আজিজুল মিয়ার ছেলে স্বপন এবং নওগাঁ জেলার শিকারপুর গ্রামের মোতাহার প্রামাণিকের ছেলে শাহীনুর ইসলাম।

ধর্ষণের শিকার গৃহকর্মী জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ সোনারগাঁ উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের বাগবাড়ীয়া গ্রামের হাবিবুরের বাড়িতে ভাড়া থেকে বিভিন্ন লোকের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ করতেন তিনি। কাজের সুবিধার্থে তিনি বর্তমানে রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা এলাকায় ভাড়া বাসা নিয়ে বসবাস করে গৃহকর্মীর কাজ করেন। হাবিবুরের বাসায় ভাড়া থাকা অবস্থায় হাবিবুর ও ওই গৃহকর্মীর কিছু আর্থিক লেনদেন হয়। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য হাবিবুরের সহযোগী স্বপন ও শাহিনুর ওই গৃহকর্মীকে ফোন করে হাবিবুরের বাসায় আসতে বলে। তাদের কথা শুনে তিনি হাবিবুরের বাসায় এলে তাকে জোরপূর্বক ৪ জন মিলে গণধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে ওই গৃহকর্মী অচেতন হয়ে পড়লে তাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় ধর্ষকরা। পরে তিনি সুস্থ হয়ে মঙ্গলবার রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং একজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে সোনারগাঁ থানায় একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন।
মামলা নং ৬৭(১০)১৯।

পুলিশ প্রাথমিক তদন্ত শেষে জানান, আসামির বিরূদ্ধে আনীত অভিযোগ গুলোর সত্যতার স্বাক্ষ্য প্রমাণ পাওয়া গেছে। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ও মূল্য রহস্য উৎঘাটনের লক্ষে আসামিকে রিমান্ডে নেওয়া প্রয়োজন ছিল।

এবিষয়ে কোর্ট পুলিশ পরির্দশক মো. আব্দুল হাই বলেন, আসামি ধর্ষণ মামলার সাথে জড়িত থাকায় মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে, বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে আসামিকে ২ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

0