ঘরোয়া চিকিৎসায় করোনামুক্ত হলেন সোনারগাঁয়ের অমিত

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনায় আক্রান্ত সোনারগাঁয়ের মো. অমিত হাসান মিরাজ মাত্র ২০ দিনের ঘরোয়া চিকিৎসায় মুক্ত হলেন করোনা থেকে। যেখানে করোনা ভাইরাসে যখন গোট বিশ্বসহ আমাদের দেশ ভয়-ভীতিসহ আতঙ্কে। প্রতিনিয়তই শোনা যাচ্ছে অজস্র মানুষের মৃত্যু খবর।

রবিবার (১৭ মে) জেলা স্বাস্থ্যসেবা অধিদপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

এর আগে, ২৮ এপ্রিল ব্লাড ফর নারায়ণগঞ্জ এর সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সেচ্ছাসেবী মো. অমিত হাসান মিরাজ করোনা পজিটিভ আসে। তারপর থেকে নিয়ম করে গরম পানি খাওয়া, গরম পানির ভাপ নেয়া, লবণযুক্ত গরম পানির গরগরা করা, নিয়মিত আদা, লং,এলাচ, দারুচিনি দিয়ে চা খাওয়া,ভিটামিন-সি, ভিটামিন-ডি, ভিটামিন-ই জাতীয় খাবার খাওয়া আর মায়ের হাতের নানান পুষ্টিকর খাবার খাওয়ার মধ্যেই পরিক্ষায় শনিবার (১৬ মে) স্বাস্থ্যসেবা অধিদপ্তরের রিপোর্ট অনুযায়ী মিরাজের কোভিড-১৯ নেগেটিভ।

করোনা চিকিৎসায় অত্যাবশ্যকীয় ভেন্টিলেশন, সিসিও কিংবা আইসিও, এন ৯৫ কিংবা সমমানের মাস্ক, দক্ষ চিকিৎসক ও নামি-দামি হাসপাতাল ছাড়াই ঘরোয়া চিকিৎসা আর আত্ম বিশ্বাসী অমিত করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে মুক্ত হয়ে ফিরে পেল সুস্থ জীবন।

অমিত হাসান বলেন, করোনা ভাইরাস শক্তিশালী হওয়া সত্বেও আমি হাল ছাড়েনি। আমি যে মায়ের একমাত্র ছেলে। এই করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে আমাকে জিততেই হবে। মাকে যে কথা দিয়েছি, আমি সুস্থ হয়ে যাবো। তোমার ছেলের কিচ্ছু হবেনা। এই সংগ্রামে আমার পুঁজি ছিল দৃঢ় মনোবল ও মনের অদম্য জোর। আমি কখনও মনে করিনি আমাকে অল্প কিছু দিন বাঁচতে হবে। আমার বিশ্বাস ছিল, আমি একদিন পুরোপুরি সুস্থ হব ইনশাআল্লাহ । বিশেষ করে আামাদের উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাইদুল ইসলাম স্যারের সেই উক্তিটা আমার মনোবলের হাতিয়ার ছিল, তিনি বলেছিলেন, মনেরেখো অমিত, মানবতার চেয়ে বড় কোন ধর্ম এই পৃথিবীতে নেই। সেই মানবতার জন্য লড়াই করে তুমি আজ আক্রান্ত। মনে রেখো সৎ সাহসীরা কখনো হেরে যায় না। আর বীরেরা কখনো মরে না। তুমি ফিরে আসবেই।

তাই আমার চিৎকার করে আজ বলতে ইচ্ছে করছে ‘স্যার আমি ফিরে এসেছি’। আলহামদুলিল্লাহ আমি এখন কোভিড-১৯ নেগেটিভ।

 

 

 

এলএন/এম/এমএ/০৫১৭-০১

0