ঘুম ভেঙ্গে সন্তানরা দেখে মায়ের ‘গলাকাটা’ লাশ, বাব পলাতক

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আড়াইহাজারে স্বামীর বিরুদ্ধে ঘুমন্ত অবস্থায় স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যার অভিযোগ উঠেছে । আর এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত স্বামী পলাতক রয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) দিবাগত রাত ১০টা থেকে ১টার মধ্যে যে কোন সময় আড়াইহাজারের গোপালদী পৌরসভার উত্তরকলা গাছিয়া এলাকায় এ হত্যাকান্ড হয়। নিহত নারীর নাম সাহেলা আক্তার (২৫)। সে ওই গ্রামের হাসেম আলীর মেয়ে।

নিহতের পরিবারের দাবি, খাবার খেয়ে ছেলে মেয়ে নিয়ে সালেহা ঘুমিয়ে থাকে। মায়ের ঘোঙ্গানি শুনে পাশে শুয়ে থাকা ছেলে মেহেদী হাসান(৯) ও মেয়ে সুমাইয়া (১১) জেগে ওঠে মাকে ‘গলাকাটা’ অবস্থায় দেখে চিৎকার দেয়।

ছেলে মেহেদী হাসান বলেন, বাবা মাকে গলা কেটে হত্যা করে। আমি চিৎকার দিলে আমাকেও গলায় ছুরি ধরে চিৎকার করতে নিষেধ করে। পরে পালিয়ে যায়।

অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম মোবারক হোসেন (৩৫)। সে নরসিংদী জেলার মাধবদি থানার খাদিমার চর এলাকার আব্দুল খালেকের ছেলে। বিয়ের পর থেকে স্ত্রী পরিবার নিয়ে আড়াইহাজারে শশুর বাড়িতে থাকতেন।

খবর পেয়ে বুধবার সকালে স্থানীয় গোপালদী তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ লাশ উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ সদর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের বোন পারভীন আক্তার জানান, মোবারক দীর্ঘদিন যাবৎ বেকার থাকার কারণে কয়েক বছর পূর্বে সালেহা সৌদী আরবে কাজ করতে চলে যায়। আড়াই বছর সৌদী আরব চাকুরী করে গত রোজার ঈদের কিছুদিন পূর্বে দেশে আসেন। সৌদী থেকে সালেহার পাঠানো টাকা নিয়ে প্রায়ই স্বামী মোবারকের সাথে ঝগড়া হতো। দীর্ঘদিন ধরেই তাকে মারধর ও হত্যার হুমকী দিয়ে আসছিল মোবারক।

গোপালদী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই নাসির আহমেদ লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ধারণা করা হচ্ছে নিহতের স্বামী হত্যাকান্ডের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

0