চাচাকে বাঁচাতে গিয়ে ভাতিজা হাসপাতালে

0

আড়াইহাজার করেসপন্ডেন্ট:
ফতুল্লা থানার দেওভোগ এলাকায় উকিল শ্বশুরকে বাঁচাতে গিয়ে কয়েক দিন আগে প্রাণ গেল শাকিল নামের এক যুবকের। এবার চাচার উপর হামলা হচ্ছে খবর শুনে ছুটে যায় ভাতিজা। ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রতিপক্ষের উপর্যুপরি দা ও চাপাতির আঘাতে এখন হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে এক কলেজ ছাত্র।

শনিবার দুপুর ১টায় স্থানীয় কালাপাহাড়িয়া ইউপির নয়াগাঁও এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত ওই মোশারফ হোসেন রাজু (২২) রাজধানীর ডেমরা এলাকায় অবস্থিত ডা. মাহাবুব মোল্লা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র।

আহতের মা রুনু জাহান জানান, স্থানীয় ১ নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার মনিরের সঙ্গে তার ভাসুর রশীদের ছেলের বিয়ের দাওয়াত নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। তবে সকালে বিচার-শালিস করে তাদের মধ্যকার পূর্ববিরোধ নিষ্পত্তিও করা হয়েছিল। কিন্তু প্রতিপক্ষের লোকজন তাতে নিভৃত হয়নি।

এরই জেরে স্থানীয় মসজিদ থেকে জোহরের নামাজ শেষে বাড়ি ফেরার সময় রশীদকে আটক করা হয়। চাচাকে আটকের খবর শুনে ভাতিজা রাজু ঘটনাস্থলে গেলে তার ওপর একই এলাকার হাজির মিয়ার ছেলে সহোদর বিল্লাল ও আলমগীর হামলা চালায়। এ সময় তারা চাপাতি ও দা দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেন রাজুকে।

রক্তাক্ত রাজুকে আশঙ্কা জনক অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তবে মনির মেম্বার এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি বা আমার কোনো লোকই কারোর ওপর হামলা করেনি। অভিযোগটি সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

এদিকে আড়াইহাজার থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

0