চিকিৎসা পত্রে যথাযথ মন্তব্য না করায় তিন চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: যথাযথ মন্তব্য না করায় ন্যায় বিচার থেকে বঞ্চিত হওয়ার আশংকায় নারায়ণগঞ্জ শহরের ৩শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের জরুরী বিভাগে ৩ চিকিৎসকের বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়সহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছে এক ব্যাক্তি।

বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বিকালে নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিসে এ অভিযোগের অনুলিপি দিতে এসে সাংবাদিকদের তথ্য জানান অভিযোগকারী জাকির হোসেন।

বন্দর উপজেলার কুচিয়ামোড়া এলাকার মৃত. আব্দুস ছোবহান বেপারীর ছেলে জাকির হোসেন জানান, তার ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন মানিক ওরফে কালুকে (২২) ৪ আগষ্ট বিকেলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একই এলাকার দেলোয়ার হোসেন তার ছেলে শান্ত ও তাদের সহযোগী নাছিম এবং রনি হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় ছুরিকাঘাত করে। এসময় আশপাশের লোকজন কালুকে উদ্ধার করে শহরের ৩শ শয্যা খানপুর হাসপাতালে নিয়ে আসে। এরপর জরুরী বিভাগের চিকিৎসক কালুর গলায় ৩ ইঞ্চি কেটে যাওয়া ও আধা ইঞ্চি গভীর হওয়া জখমে সেলায় করে চিকিৎসা দেয়। এঘটনায় বন্দর থানায় ৩২৬ ধারা সহ পৃথক ৩টি ধারায় একটি মামলা দায়ের করি।

তিনি আরো জানান, ঘটনার ১৭ দিনের মধ্যে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক সেলিনা আক্তার, চিকিৎসক অমিত রায় ও চিকিৎসক ফয়সাল আহমেদ সাক্ষরিত একটি ইঞ্জুরি সার্টিফিকেট পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। ওই সার্টিফিকেটের মধ্যে চিকিৎসকরা মন্তব্য করেছে অল্প আঘাত পরিলক্ষিত হয়েছে। এতে পুলিশ ঘটনার এক মাসের মধ্যেই ৩২৬ ধারা বাদ দিয়ে যথাযথ ধারা সংযোজন না করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেছে। এতে ধারনা করা হয় ন্যায় বিচার পাবো না। আমরা আদালতে চার্জশীটের বিরুদ্ধে নারাজী দাখিল করবো।

এবিষয়ে জরুরী বিভাগের মেডিকেল অফিসার সেলিনা আক্তার বলেন, আঘাতটি স্পর্শকাতর স্থানে হলেও এতো বেশি গুরুতর নয়। ইঞ্জুরি রিপোর্টে যথাযথ মন্তব্য করেছি। এবিষয়টি হাসপাতালে উর্ধ্বতনরা অবহিত আছে।

0