‘ছোট ভাইয়ের ফরম পুরণের টাকা দিতে পারেনি, এখন শিক্ষা খাতে দানবীর’

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘আমি যখন ছাত্র নেতা ছিলাম। সেদিন ইন্টার মিডিয়েটের ফরম ফিলাপে মাত্র ৯‘শ টাকার জন্য করতে পারি নি। আমার মেঝু ভাই সেলিম ওসমান বিভিন্ন জায়গায় চেষ্টা করেও সেই টাকা যোগার করতে পারে নি। আজ সেই ভাই আমার বন্দরেই ৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভবন করে দিয়েছেন। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ ও ফতুল্লাতেও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কোটি কোটি টাকা অর্থ দান করেছেন। আল্লাহ রিজিক দিয়েছেন; করছেন।’

সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বন্দরে সামসুজ্জোহা উচ্চ বিদ্যালয়ে এক দোয়া অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান। ওসমান পরিবারের আয়োজনে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি, ভাষা সৈনিক ও বঙ্গবন্ধুর অন্যতম সহচর একেএম সামসুজ্জোহার মৃত্যুবাষির্কী উপলক্ষে অনুষ্ঠানটি হয়।

শামীম ওসমান বলেন, ‘নিজের রক্ত পানি করা শ্রম দিয়ে যে অর্থ উপাজন করছে, সেই অর্থকে আল্লাহকে খুশি করার জন্য শিক্ষা খাতে ব্যয় করছেন। তাই আমি উনার (সেলিম ওসমান) কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। বাংলাদেশে কোন পরিবার নাই, যারা তিন পুরুষ ধরে সংসদ সদস্য। আমরা ৩ পুরুষ ধরে শুধু সংসদ সদস্য নয়, আমাদের পরিবারে এক মায়ের পেটের ৩ ভাইও সংসদ সদস্য। আল্লাহ তায়ালা আমাদের কবুল করেছেন। ৩ ভাইকেরই মানুষের সেবা করার তৌফিক দিয়েছেন। নারায়ণগঞ্জের মানুষের কাছে আমরা ঋণি। তাই আমাদের চাওয়া পাওয়ার কিছু নাই।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে শামীম ওসমান বলেন, আমরা যারা পৃথিবীতে আসছি, সকলেই পরীক্ষা দিতে আসছি। লেখাপড়া করছো, এটাই তোমাদের সাথে থাকবে। আমরা অনেকেই ভালো ফুটবল খেলা দেখে মনে করি, এর মতো যদি খেলতে পারতাম। ভালো ক্রিকেটারকে দেখে মনে করি, তার মতো যদি ক্রিকেটার হতে পারতাম। কেউ আবার প্রধানমন্ত্রীও হতে চান। তবে, আমি মনে করি, সব চেয়ে সুখের বিষয় হলো ভালো মানুষ হওয়া। আর এ জন্য মা-বাবার দোয়া প্রয়োজন। যে সন্তানের জন্য তার মা ও বাবার দোয়া থাকবে, আমি বিশ্বাস করি, তাকে কেউ ঠেকাইয়া রাখতে পারবে না।

তিনি বলেন, আমাদের সবচেয়ে বড় গর্বের বিষয় হলো, আমার বাবা আমাদের জন্য এক টাকার সম্পদ রেখে যান নাই। তবে, আমার বাবা একজন সৎ মানুষ ছিলেন। রাজনীতি করতে আসছিলেন, বেচতে নয়। আমার পিতার কাজে আমি গর্ব করি, উনি আমাদের কিছু দেন নাই। কিন্তু মানুষকে ভালোবাসতে শিখিয়েছেন।

এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোহাম্মদ আলী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) শুক্লা সরকার, বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রশিদ, জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক আবু জাহের, নারায়ানগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর সভাপতি খালেদ হায়দার খান কাজল, নারায়ণগঞ্জ শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভুঁইয়া সাজনু, মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মাকসুদ হোসেন, মদনপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম এ সালাম, বন্দর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন, ধামগর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মাসুম আহম্মেদ, কলাগাছিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. দেলোয়ার হোসেন প্রধান, আলিরটেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিউর রহমান, গোগনগরের চেয়ারম্যান মো. নওশেদ আলী, জেলা যুবলীগ নেতা এহসানুল হক নিপু, সাফায়াত আলম সানি, মহানগর ছাত্রলীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আরাফাত কবির ফাহিম প্রমুখ।

0