জমজমাট কোরবানির পশুর হাট

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: জমছে না জমছে না করে হঠাৎ নারায়ণগঞ্জের কোরবানির পশুর হাট জমে পুরো ক্ষীর! ছুটির দিন শুক্রবার জমজমাট বিকিকিনি শহর ও শহরতলীর সব পশুরহাটই। পুরোদমে চলছে বেচাকেনা। গত কালের বৃষ্টিতে কাদা-পানি উপেক্ষা করেই পশুর হাটে ভিড় করছেন ক্রেতারা। অনেকে ইতোমধ্যেই কিনে নিয়ে গেছেন পছন্দের গরু-ছাগল।

নগরীর আলীগঞ্জ পশুর হাটে শুক্রবার (৯ আগস্ট) দুপুরে সরেজমিনে দেখা যায়, বাজারে পশুর কোনো কমতি নেই। চাহিদা মোতাবেক পশু রয়েছে হাটে। তবে দাম এখনও চড়া বলে জানান ক্রেতারা। ৬০-৭০ হাজার টাকার কমে কোনো গরু পাওয়া যাচ্ছে না। এ কারণে অনেকে অপেক্ষা করে আছেন দাম কমার।

ব্যবসায়ীরা জানান, এবার যশোর, কুষ্টিয়া, রংপুর, পঞ্চগড়, নওগাঁ, রাজশাহী, পাবনা, সিরাজগঞ্জ থেকে অসংখ্য গরু-ছাগল আনা হয়েছে। আজও ট্রাকভর্তি গরু এসেছে। বাজারের মুখে নামানোর পর সেগুলো হাটে ঢুকানো হচ্ছে।

কয়েকটি পশুর হাট ঘুরে দেখা যায়, গত কালকের বৃষ্টির কাধা পানি ক্রেতারা উপেক্ষা বাজারে ঘুরছেন। একটির পর একটি গরু দেখছেন। পছন্দ করছেন, কেউ কিনছেন আর কেউ না কিনে ফিরে যাচ্ছেন।

জালকুড়ির হাটে দেখা যায়, ভেতরে কোনো ধরনের জায়গা নেই। হাটের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত গবাদি পশুতে ঠাসা। রাস্তায়ও রাখা হয়েছে গরু-ছাগল।

গত দু’দিনের তুলনায় হাটে ক্রেতাদের ভিড়ও কয়েকগুণ বেশি দেখা গেছে। বেচাকেনাও বেশ জমজমাট।

অন্যদিকে, ফতুল্লা হাটে তানভীর নামে এক ব্যবসায়ী জানান, তিনি ৫০টি গরু এনেছেন। বৃহস্পতিবার সাতটি বিক্রি করেছেন। বাকিগুলো আজকালের মধ্যে বিক্রি হবে বলে তার আশা।

তিনি বলেন, ‘দাম ধরে রেখে কোনো লাভ নেই। তাই অল্প লাভেই ছেড়ে দিচ্ছি। শেষে কী হয় বলা যায় না।’

মোখতার নামে আরেক ব্যবসায়ী জানান, তিনি ১০টি গরু বিক্রি করেছেন। দামও মোটামুটি পেয়েছেন। শুক্রবার হিসেবে আজ বেচাকেনা কয়েকগুণ বেড়েছে।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা জানান, এবার নারায়ণগঞ্জ জেলায় সম্ভাব্য কোরবানির পশুর সংখ্যা ১ লাখ।

0