জেএমবি‘র ৩ সদস্য র‌্যাব-১১‘র জালে ধরা

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন (জেএমবি) এর ৩ সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ এর অভিযানিক দল। বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) রাত ১১ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারের সময় তাদের নিকট থেকে বিপুল পরিমাণ উগ্রবাদী বই, উগ্রবাদী লিফলেট ও ল্যাপটপ উদ্ধার করা হয়।

শুক্রবার (১২ জুলাই) একি বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বৃহস্পতিবার রাত ১১টায় জেএমবির ওই তিন সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়।

ধৃতরা হলো-মো. আশফাক-উর-রহমান অয়ন ওরফে আরিফ ওরফে অনিক (২৬), মো. রনি আহম্মেদ ওরফে রনি (৩১) ও মো. রিপন মন্ডল ওরফে রিপন (৩০)।

বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানায়, মো. আশফাক-উর-রহমান অয়ন ওরফে আরিফ ওরফে অনিক ২০১৪ সালে মোল্লা ইব্রাহীমের বক্তব্য শুনে তার মাঝে উগ্রবাদী চেতনা জাগ্রত হয় এবং মোল্লা ইব্রাহীমের মাধ্যমে বাংলাদেশী জিহাদী তৎপরতা ও আল কায়দা সম্পর্কে ধারণা নেয়। পরবর্তীতে সিলেটে মোল্লা ইব্রাহীমের কয়েকজন ঘনিষ্ঠ অনুসারীর মাধ্যমে আশফাক-উর-রহমান অয়ন আনসার-আল-ইসলামের কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে পড়েন। ২০১৫ সালের দিকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন আনসার-আল-ইসলামের সামরিক শাখার আইটি বিভাগের দায়িত্বে নিযুক্ত হয়। একই বছর সে ঢাকায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন আনসার-আল-ইসলামের একটি ১২ দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অংশগ্রহন করে গেরিলা যুদ্ধ সম্পর্কে তাত্ত্বিক ধারনা নেয়। সেখানে তার সাথে মেজর জিয়ার পরিচয় ও ঘনিষ্ঠতা হয়। ২০১৬ সালে সিলেট থেকে ঢাকায় এসে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন আনসার-আল-ইসলামের মিডিয়া উইং এর দায়িত্ব পালন করে। আশফাক-উর-রহমান অয়ন ২০১৭ সালে মে মাসে শুরুতে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। ২০১৭ সালের শেষের দিকে জামিনে এসে পুনরায় জঙ্গী কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ে। ০২টি নিষিদ্ধ জঙ্গী ও উগ্রবাদী সংগঠন যথাক্রমে আনসার-আল-ইসলাম ও জামাআতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) এর কার্যক্রম ও আদর্শগত অভিন্নতা থাকায়, নিজের পরিচয় উৎঘাটিত হাওয়ায় এবং সাংগঠনিক কর্মকান্ডের সুবিধার্থে জামাআতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) তে যোগদানপূর্বক পূর্বের ন্যায় সামরিক শাখার আইটি বিভাগের শীর্ষ নেতা হিসেবে নিযুক্ত হয়ে জঙ্গী তৎপরতা অব্যাহত রাখে।

র‌্যাব জানায়, রনি আহম্মেদ রনি ও রিপন মন্ডল রিপন দুজনই দীর্ঘদিন ধরে চট্টগ্রামের ইপিজেডের দুটি বেসরকারী কোম্পানীতে চাকুরী করে। ২০১৬ সালের শুরুর দিকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন জামাআতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) এর সক্রিয় সদস্য মেহেদী হাসান ও আকবর হোসেন ওরফে সুমনের মাধ্যমে তারা উভয়ই উগ্রবাদী চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে জেএমবিতে যোগদান করে এবং জঙ্গী তৎপরতায় জড়িয়ে পড়ে। রনি আহম্মেদ রনি চাকুরীর পাশাপাশি জেএমবির সাংগঠনিক চালানোর সুবিধার্থে ছদ্মবেশে রাতে রিকশা চালাতো।

র‌্যাব আরও জানায়, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতরা স্বীকার করেছে, তারা দীর্ঘদিন ধরে গোপনে সংগঠিত হয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন জেএমবির কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে এবং নাশকতা মূলক কর্মকান্ড করার অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন।

৩৪
0