টাকার ভাগাভাগি নিয়ে না.গঞ্জে বিআরটিসি বাস বন্ধ! (ভিডিওসহ)

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: সরকারি পরিবহন বিআরটিসি বাস সার্ভিসের দূর্নীতির টাকার ভাগাভাগি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ ডিপোর ট্রাফিক ইনজার্চকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে ম্যানেজারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় দূর্নীতি ও শ্রমিক নির্যাতনের অভিযোগ এনে ম্যানেজারকে অবরোধ ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করেছে শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জের খানপুর ডিপোতে এ কর্মসূচি চলছে। এতে, সকাল থেকে মন্ডলপাড়া, ২নং রেল গেইট, চাষাঢ়াসহ সব গুলো কাউন্টার বন্ধ রয়েছে।

এর আগে, রাতে দূর্নীতির টাকার ভাগাভাগি নিয়ে ডিপোর ট্রাফিক ইনজার্চকে মারধর করে ম্যানেজার।

খানপুর ডিপোতে বন্ধ অবস্থায় পরে আছে বাস গুলো

অভিযুক্ত ওই ম্যানেজারের নাম প্রকৌশলী জেড এ কামরুজ্জামান। মারধরের শিকার ট্রাফিক ইনচার্জ এর নাম ফরহাদ।

খানপুরের বিআরটিসি ডিপু থেকে আমাদের প্রতিনিধি জানান,  নারায়ণগঞ্জ ডিপোর শ্রমিকরা গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করায় গাড়ি বন্ধ রয়েছে।

ডিপুর ম্যানেজার প্রকৌশলী জেড এ কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে ট্রাফিক ইনচার্জ ফরহাদকে মারধর ও দূনীর্তির অভিযোগে শ্রমিকদের এক কর্মসূচি চলছে। এরই মধ্যে কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে ৫৫ জনের লিখিত স্বাক্ষরসহ একটি আবেদন ই-মেইলের মধ্যেমে বিআরটিসির চেয়ারম্যানকে পাঠিয়েছে শ্রমিকরা। পরে চেয়ারম্যান শ্রমিকদের আশ্বাস দিয়ে জানান ম্যানেজার পদে দিপক চাকমাকে পোষ্টিং করার আশ্বাসদেন। এর আগেও প্রকৌশলী জেড এ কামরুজ্জামানের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের মারধর ও দূর্নীতির অভিযোগ ছিলো।

২নং রেল গেইটের বন্ধ কাউন্টার

অন্যদিকে বিআরটিসির শ্রমিকরা জানান, ম্যানেজার প্রকৌশলী জেড এ কামরুজ্জামান ও ট্রাফিক ইনচার্জ ফরহাদ এক সাথেই দূর্নীতি করতেন। সেই টাকার ভাগ নিয়েই ফরহাদকে বাসায় ডেকে এনে মারধর করে ম্যানেজার কামরুজ্জামান। এক পর্যায়ে ২ তলা ভবনের থেকে লাফ দিয়ে নিজেকে রক্ষা করে ফরহাদ। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে শ্রমিকরা বিক্ষোভ শুরু করেন।

বিষয়টি নিয়ে কামরাজ্জামানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি ফোনটি রিসিভ করেনি।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন

 

0