টাকা-পয়সার লোভে উগ্রবাদকে সাপোর্ট করবেন না: ডিসি

0

স্টাফ করেসপন্ডেট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: জেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশদের নিয়ে “উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা” শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০ টায় বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারের সভাপতিত্ব করেছেন জেলা প্রশাসক মো.জসিম উদ্দিন।

সেমিনার কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মাহফুজা লিজা (বিপিএম) সেমিনারটি পরিচালনা করেছেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, উগ্রবাদকে বেশিরভাগ লোকই সাপোর্ট করে। কোথা থেকে টাকা আসে দেখা যায় তারা নিজেরাও জানে না। দেখা যায় বাড়ীতে চালের বস্তা চলে এসেছে। আবার বাসায় যাওয়ার সময় খুববেশি না কিছু টাকা দিয়ে দিবে যাতে বাবা-মা খেতে পারে। এ রকম কোন লোভ কিংবা সামান্য কিছু টাকা পয়সার লোভে উগ্রবাদকে সাপোর্ট করবেন না। অর্থাৎ, সঠিক জিনিসটা সংশ্লিষ্টকে জানাবেন।

এছাড়াও তিনি গ্রাম পুলিশদের বিভিন্ন সমস্যার কথা জানতে চাইলে, বন্দর ৩নং ওয়াডের গ্রাম পুলিশ জোছনা বেগম ৩ মাস ধরে অসুস্থ এবং ৩ মাস ধরে বেতন বকেয়া না পাওয়ার সমস্যা তুলে ধরেন। জোছনা বেগমের সমস্যা গুলো দেখা হবে বলে তাকে আশস্ত করেন।

এছাড়াও বন্দর ১নং ওয়াডের ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ মো. আল-আমিনকে এক বছরে ৮টি বাল্যবিবাহ রোধ করায় তাকে ফুলের তোরা দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় তিনি।

অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মাহফুজা লিজা বলেন, বাংলাদেশ পুলিশের সন্ত্রাস দমন ও আন্তর্জাতিক অপরাধ প্রতিরোধ কেন্দ্র নির্মাণ এর লক্ষে জেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশদের সাথে আজকে সেমিনার করা হয়েছে। “উগ্রবাদ প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের ভূমিকা” শীর্ষক ৩দিনে ছাত্র-ছাত্রী, পুলিশ সদস্য, কারারক্ষী কমকতা, জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান-মেম্বার, গ্রাম পুলিশ ও ইমাম-মুয়াক্তিনসহ ৬ শ্রেনীর কমকতাদের সাথে এ সেমিনার করা হয়েছে।

এছাড়াও তিনি আরও বলেন, এ সেমিনারে তাদের উগ্রবাদের চেনার উপায়, নিজেকে সচেতন ও পাশাপাশি অন্যকে সচেতন, ধর্মীয় অনুশাসন অবলম্বনের কথা, সন্তানদের ছোট থেকে দেশ ও ধর্মকে ভালোবাসার কথা বলা এবং শিখানো, ধৈর্য ও রাগ-হিংসতা থেকে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ, দুর্নীতি থেকে দেশকে ও নিজেকে মুক্ত রাখাসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করা হয়।

0