ডিসির সাথে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের নেতৃবৃন্দের সাক্ষাৎ

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজের সাথে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার নেতৃবৃন্দ সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। নারায়ণগঞ্জ জেলার যোগদানে তাকে জেলার নেতৃবৃন্দ আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান। বুধবার (২৯ জুন) বিকাল ৪টায় জেলা প্রশাসনের কার্যলয়ে সাক্ষাৎ করেন তারা।

মহিলা পরিষদের পাঠানো এক বিবৃতিতে জানান, পদ্মা সেতু আমাদের আত্মমর্যাদার প্রতীক। সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আবারো মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। শুধু তাই নয় দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা ও অর্থনীতিতে বিশেষ ভূমিকা পালন করবে। এ সেতুর রূপকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন জ্ঞাপন করা হয়।

সারা দেশে নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা, নারী- পুরুষের সমতা প্রতিষ্ঠা, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধ, নারী- পুরুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ১৯৭০ সালের ৪ঠা এপ্রিল কবি সুফিয়া কামাল বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গঠন করেন। সেই সময় থেকে অদ্যাবধি বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখাও বাংলাদেশের জন্মলগ্ন থেকে এই মহতী কাজের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে। জেলার অসহায়, নির্যাতিত নারী ও শিশুদের সহযোগিতা করে আসছে। নারীর সমঅধিকার প্রতিষ্ঠা এবং নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রশাসন, সংবাদ মাধ্যম, স্কুল- কলেজ- বিশ্ববিদ্যালয়, বিভিন্ন পেশাজীবী নারী- পুরুষ, সাধারণ মানুষের সাথে সব সময় যোগাযোগ ও মত বিনিময় করে চলেছে। এছাড়াও করোনা মহামারী, বন্যাসহ সকল প্রকার প্রাকৃতিক দূর্যোগে সব সময় সাধ্যমত ত্রাণ সহায়তা করে আসছে।

উল্লেখ্য যে, করোনা মহামারী সময় কালে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ বছর ব্যাপী রান্না করা খাবার, অক্সিমিটার, থার্মোমিটার, চাল, ডাল, তেল, আটাসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রী ও অর্থ অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করেছে। সাম্প্রতিক সময়ে সুনামগঞ্জ ও সিলেটে ক্ষতিগ্রস্থ অসহায় মানুষের মাঝে অর্থ ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছে। সকল ধরনের নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে জেলা প্রশাসন সব সময় মহিলা পরিষদকে সহযোগিতা করে আসছে। এসব কার্যক্রমে জেলা প্রশাসকের আন্তরিক সহযোগীতা কামনা করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি বীর নারী মুক্তিযোদ্ধা লক্ষ্মী চক্রবর্তী, কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ও জেলার সাবেক সভাপতি আনজুমান আরা আকসির, সংগঠন সম্পাদক প্রীতি কণা দাস, লিগ্যাল এইড সম্পাদক সাহানারা বেগম, আন্দোলন সম্পাদক শোভা সাহা, প্রোগ্রাম এক্সিকিউটিভ সুজাতা আফরোজ, অফিস সহকারী সুমী সরকার।