ডেবিডের সহযোগী সানুর গুন্ডামি, ড্রেন দখল করে স্থাপনা নির্মাণ!

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ:
এক সময়ের দূর্ধর্ষ প্রভাবশালী বিএনপির নেতা মমিন উল্লাহ ডেবিড ক্রসফায়ারে মারা গেলেও এখনো তার সহযোগি অপরাধীরা বীরদর্পে নারায়ণগঞ্জে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তাদেরই একজন রফিকুল ইসলাম সানু ওরফে বিএনপি সানু । ডেবিডের অপরাধ রাজ্যের এক সময়ের এই সহযোগি সরকারী সড়ক দখল করে স্থাপনা নির্মাণে এলাকাবাসী বাধা দিলে উল্টো মারমুখী আচরণ করে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ঠিকাদার পরিচয় দিয়ে শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কস্থ বর্ষণ সুপার মার্কেটের পূর্ব পাশের সড়ক দখল করে কোন ধরণের অনুমতি ছাড়াই পাকা স্থাপনা নির্মাণ শুরু করেছে সানু ও তার লোকজন। তবে এবার ডেবিডের পরিবর্তে প্রয়াত আওয়ামীলীগ নেত্রী নাজমা রহমানের নাম ব্যবহার করছে এই অপরাধী।

১১ অক্টোবর সরকারী ছুটির দিন শুক্রবার হওয়ার সুযোগ নিয়ে বর্ষণ সুপার মার্কেটের ডিপ টিউবওয়েল এর জন্য স্থাপনা নির্মাণ শুরু করেন। স্থাপনা নির্মাণে জনসাধারণের চলাচলের জন্য নয়ামাটির সড়কের একটি অংশ দখল করা হয়। এসময় এলাকাবাসীর প্রবাল বাধার মুখে পরে বিএনপির এই সন্ত্রাসী সানু ও তার লোকজন। এরপরও থামানো যায়নি তাদের। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের প্রয়াত সভানেত্রী নাজমা রহমানের দোহাই দিয়ে এমন প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে স্থাপনা নির্মান চালানোর ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। সড়ক দখল করার ঘটনায় নির্মান কাজ বন্ধ করতে বললেও ডেবিডের সহযোগি রফিকুল ইসলাম সানু নির্মান কাজ অব্যাহত রাখে। এক পর্যায়ে প্রয়াত নেত্রী নাজমা রহমানের কন্যা পরিচয় দিয়ে ডেকে আনার পর এমন অনৈতিক কর্মকান্ড দেখে নিজেই হতভম্ব হয়ে কোন কথা না বলেই ফিরে যায়।

এমন খবরে কয়েকজন গণমাধ্যমকর্মী সড়ক দখল করে নির্মান কাজ চালানোর বিষয়ে জানতে চাইলে রফিকুল ইসনলাম সানু দম্ভ করে কাজ চালানোর নির্দেশ দেন সহকর্মীদের। এক পর্যায়ে সানু নিজেই স্বীকার করে ডেবিডের সকল কাজ সে নিজেই করতো। এখনো সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন নির্মান কাজের ঠিকাদারী করেন বলেও জানান সানু।

জনসাধারণের চলাচলের পথ বন্ধ করে সরকারী সড়ক ও ড্রেনের উপর স্থাপনা নির্মান বিষয়ে জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ কর্পোরেশেনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা আলমগীর হিরন বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে আমি লোক পাঠিয়ে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছি।

0