‘তখন শামীম তো জমদূত’

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: লিপির বাবাকে আমি দুলাভাই ডাকতাম। আমার বাবার মৃত্যুর পরে ওর (শামীমের) বন্ধু বান্ধব এসে বললো ‘শামীমতো ওই খানে…’। আমি জানতে চাইলাম- দুই পক্ষ, না এক পক্ষ? শুনলাম- ৯০ শতাংশই একপক্ষ। আমি মহা বিপদে পরে গেলাম। শামীমের বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলাম। কি বলবো, বুঝতে পারছিলাম না।

নিজের আদরের ছোট ভাইয়ে জন্মদিনে স্মৃতি চারণ করতে গিয়ে বড় ভাই সেলিম ওসমান ‘সালমা ওসমান লিপির সাথে শামীম ওসমানের বিয়ের ঘটনা’ এভাবেই তুলে ধরছিলেন।

পরিবারের পক্ষ থেকে আয়োজিত নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের ৬০ তম জন্মদিন উপলক্ষে নম পার্কে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এসময় অনুষ্ঠানের মধ্যমণি শামীম ওসমান ও তাঁর সহধর্মীনি সালামা ওসমান লিপি উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই এই আলোচিত রাজনীতিবিদের শৈশব থেকে শুরু করে রাজনৈতিক জীবনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ও অবদানের কথা তুলে ধরেন পরিবারের সদস্যরাসহ, নিকট আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব ও ঘনিষ্ঠজনরা। এসময় অনেকেই আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।

সেলিম ওসমানের ভাষ্য, ‘শামীম তখন তোলারাম কলেজে নেতৃত্ব দিতেন। সে কারণে ওই (সালমা ওসমান লিপি) পরিবারের রিয়েক্ট দেখে মনে হলো জমদূতের সাথে লিপির বিয়ে হবে। তখন শামীমতো জম দূত!’

সেলিম ওসমান বলেন, ‘এক সময় পুলিশ সমস্যরা শামীমকে ধরার জন্য পিছনে পিছনে ঘুরতেন। আজকে অনুষ্ঠানে এসে দেখলাম অনেকেই শামীম ওসমানের প্রশংসা করছেন। একজন পুলিশ সদস্যও শামীম ওসমানের প্রশংসা করছে। সেদিন যদি একজনও এভাবে প্রশংসা করতো, তাহলে হয়তো আমার এত কষ্ট করতে হতো না।’

রাত এগারোটার দিকে উৎসবমুখর পবিবেশে পরিবারের সদস্য ও ঘনিষ্ঠজনদের নিয়ে কেক কেটে নিজের ষাটতম জন্মদিন পালন করেন সংসদ সদস্য শামীম ওসমান। এ সময় প্রচুর আতশবাজি ফোঁটানো হয়।

0