বিবেকবান মানুষের মনের আদালতে খুনি ওসমান পরিবারের বিচার হয়ে গেছে:সুলতানা কামাল

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: আমরা জানতে চাই, যারা ১০ বছর ধরে ক্ষমতার আসনে রয়েছে, যাদের দল
মুক্তিযুদ্ধে সরাসরি অংশগ্রহণ করেছে এবং যারা নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের দল বলে দাবী করে থাকে তারা কি একটি কিশোর
হত্যার বিচার করতে পারে না? আজ তো দেশে এমন কোন শক্তিশালী শত্রুভাবাপন্ন বিরোধী দল নেই যে তারা কোন
কারণে ভীত।

শুক্রবার (৮ মার্চ) নারায়ণগঞ্জ শহরের আলী আহমদ চুনকা পাঠাগারের সামনে তানভির মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার
বিচারহীনতার ৬ বছর শীর্ষক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন মানবাধিকার কর্মী সুলতানা কামাল।

এর আগে সুলতানা কামাল বলেছেন, একটি বিষয় খুবই লজ্জার যে যেই বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন
তারই কন্যার শাসনামলে আমরা একটি কিশোর হত্যার বিচার চেয়ে আসছি। আর সেই দাবী আমাদের ৬ বছর ধরে
জানাতে হচ্ছে। সেই বিচার আজও হয়নি।

তিনি আরও বলেন, যেহেতু দল ও দলের নেত্রী এত শক্তিশালী হবার পরেও বিচার হচ্ছে না। তার মানে হচ্ছে এই দেশে
আইনের শাসন চলছে না। আর যেই দেশে আইনের শাসন নেই সেই দেশের মানুষ নিরাপদ নয়। সেই আইনের শাসনের
সংকটের কারণেই নারায়ণগঞ্জে ৭ খুনের মত ঘটনা ঘটে।

সুলতানা কামালের ভাষ্য মতে, ‘দেশের কাঠামোগত আদালতে আনুষ্ঠানিকভাবে ত্বকী হত্যাকারীদের বিচার না হলেও
নারায়ণগঞ্জের প্রতিটি বিবেকবান মানুষের মনের আদালতে খুনি ওসমান পরিবারের বিচার হয়ে গেছে। আজ যতই ক্ষমতার
দম্ভ দেখাক না কেন একদিন মানুষ প্রকাশ্যে তাদের খুনি বলে অভিহিত করতে ভীত হবে না। গোয়েন্দা বাহিনীর কাছে
অনুরোধ, আপনারা দল মতের উর্দ্ধে উঠে প্রধানমন্ত্রীকে জানান যে মানুষ বিচার চায়।

সভায় সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বির সভাপতিত্বে ও ভবানী শংকর রায়ের সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য
রাখেন নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম, সাংবাদিক ও কবি হালিম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক
কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, বাসদের জেলা সমন্বয়ক নিখিল দাস, গণসংহতি আন্দোলনের জেলা সভাপতি
তরিকুল সুজন, সিপিবির জেলা সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী, এড. আওলাদ হোসেন সহ প্রমুখ।

সমাবেশ শেষে একটি ত্বকী হত্যার বিচার চেয়ে একটি প্রতিবাদী মিছিল বঙ্গবন্ধু সড়ক ঘুরে শহীদ মিনারে এসে সমাপ্ত হয়।

0