তুচ্ছ ঘটনায় ঝড়ছে প্রাণ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ১৫ জুলাই স্ত্রীর সাথে শ্বশুর বাড়ি আড়াইহাজারের নৈকাহন গিয়েছিলেন শাহ্ আলম। জামাইকে আপ্যায়নও করেছে বেশ। আসার আগে আরও এক রাত থেকে যেতে জোড় করছিলেন শ্বশুর-শাশুড়ি। তখনও বুঝতে পারেনি- এ রাতই হবে শাহ্ আলমের শেষ রাত। ভোরের সুর্য আলো দিয়েছে ঠিকই, শুধু চোখ মেলেনি শাহ আলম। কী হয়েছিল সেই রাতে, এখনও রহস্য যায়নি জানা। পালিয়ে আছে স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়ি। তবে, শাহ আলমের পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ বলছে, অল্প কিছু টাকার জন্যই খুন হয়েছে শাহ্ আলম।
অন্যদিকে, বহুদিন যাবতই বন্দর উপজেলার মিঠুর কাছে ৫০০ টাকা পেতেন মিশর। টাকা উঠাতে না পেরে মিঠুর মোবাইল ফোন আটকে রাখে। আর এ ফোন আটকে রাখাই কাল হয় মিশরের জীবনে। ২২ জুলাই দিবাগত রাতে শেষ পর্যন্ত প্রাণ দিয়ে গুণতে হয় ৫০০টাকা ধার দেওয়ার মাশুল।
শুধু শাহ্ আলম কিংবা মিশরই নয়। গত এক মাসে এমন অনেক তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে অন্তত ৯ জনের প্রাণ ঝরেছে।

নারায়ণগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় একের পর এক হত্যাকান্ডের উদ্বেগ দেখা দিয়েছে সমাজে। এ যেন ভয়াবহ ব্যাধিতে রূপান্তর হচ্ছে মানবিকমুল্যবোধহীনতার অদ্ভূদ সমাজের!

সম্প্রতি শিরোনাম গুলো ভাবিয়ে তুলছে সবাইকে- ৩ জুলাই কথা কাটাকাটিকে কেন্দ্র করে সোনারগাঁয়ে স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যা, ১৩ জুলাই গাড়ি না ধোওয়ার কারণে হেলপারকে পিটিয়ে হত্যা, ২০ জুলাই সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পূর্বপাড়া এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে প্রতিবন্ধীকে হত্যা, ২৬ জুলাই ক্রিকেট খেলা নিয়ে ঝগড়ার জেড়ে রিতুল নামের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রকে হত্যা, ২৭ জুলাই হেডলাইটের আলো চোঁখে পড়ায় যুবককে কুপিয়ে হত্যা, ৩১ জুলাই প্রেমিকার সাথে দেখা করতে এসে খুন ও সর্বশেষ চাষাঢ়ায় ১ আগস্ট কোকাকোলার বোতল ছিটকে শরীরে লাগায় বিক্রয়কর্মীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ব্যাপারে মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ফ্রয়েড বলেছিলেন, সুযোগ পেলেই মানুষের ভেতরের আদিম পশুপ্রবৃত্তি বেরিয়ে আসতে চায়। ছোট্ট একটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে যখন মানুষের মধ্যে এরকম প্রতিক্রিয়া দেখা যায়, তখন বুঝতে হবে যে ঐ পশুপ্রবৃত্তিটি কাজ করছে।

মানুষের এমন পশুপ্রবৃত্তি নিয়ে নারায়ণগঞ্জ নাগরীক কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, বতর্মান সরকারের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটের কারণেই মানুষের মধ্যে সামাজিক ভারসাম্য নষ্ট হয়েছে। আর এ কারণে মানসিকতার বিভেদ তৈরি হয়েছে। বাড়ছে হত্যাকান্ড।

আর আমার নারায়ণগঞ্জবাসীর সভাপতি মন্ডলীর সদস্য অ্যাড. মাহবুবুর রহমান ইসমাইল বলেন, রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট, দলিয় করণ পুলিশ, নির্বাচন ব্যাবস্থা আর বিচারহীনতার কারণেই এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এ অবস্থা থেকে পরিত্রান পেতে হলে এখন জাতীয় ঐক্যের প্রয়োজন। সকল শ্রেণি পেশার পাশাপাশি রাজনৈতিক দল গুলোকেও এক সারিতে এসে দাঁড়াতে হবে। বাড়াতে হবে মানুষের মূল্য বোধ।

বিল্লাল হোসেন রবিন মানবাধিকার সংগঠন অধিকার’ এর নারায়ণগঞ্জ জেলা সমন্বয়ক জানান, বর্তমানে নৈতিক অবক্ষয়ের পাশাপাশি আইন নিজের হাতে তুলে নেয়ার প্রবণতা বেশি। এ জন্য বিচার কার্যে গতি আনতে হবে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে আরও সচেতন হয়ে জনগনের সাথে সম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে।

0