দূর্গাপূজায় মুক্তি পেলো বিবি মরিয়ম স্কুলের শিক্ষার্থী স্নেহার ৪ গান

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: শারদীয় দূর্গাপূজায় মুক্তি পেলো শিশু শিল্পী স্নেহা দাস অর্পিতার গাওয়া চারটি গান। উৎস প্রোডাকশন্স এর নিজস্ব অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে এ গানগুলি মুক্তিপায়নারায়ণগঞ্জ শহরের বিবি মরিয়ম উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী স্নেহার সঙ্গীতের হাতেখড়ি মা শিপ্রা দাসের হাতে মাত্র চার বছর বয়সে। এর পর একে একে তালিম নিয়েছে সঙ্গীত শিক্ষক অভিজিত দেব, নিরঞ্জন চক্রবর্তী নিকট থেকে।

বাবা অজিত দাস একজন সরকারী কর্মকর্তা হলেও অত্যান্ত সাংস্কৃতিক মনা মানুষ। বাবার উৎসাহে সঙ্গীত চর্চায় নিজেকে বেগবান করেছে শিশু সঙ্গীতশিল্পী স্নেহা। বর্তমানে স্নেহা উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের উপরে তালিম নিচ্ছে, সরকারী সঙ্গীত শিক্ষা কলেজের উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত বিভাগের প্রভাষক সাইফুল তানকারের নিকট থেকে।

স্নেহা জানায়, এবারের দূর্গাপুজায় তার গাওয়া চারটি গান মুক্তি পেয়েছে। গানগুলি হলো, হৃদয়ের রং, আমি শুনেছি সেদিন, স্বপ্ন আমার আকাশ ছোব ও শিশিরে শিশিরে। এ গানগুলির মাঝে একটি মৌলিক , একটি পুজার সঙ্গীত এবং অপর দুটি আধুনিক গানের কভার সং।

মৌলিক গানটি লিখেছেন রানা ইব্রাহীম। সুর করেছেন অনিম খান। সব গুলো গানই কম্পোজ করেছেন অনিম খান। মুলত এখন স্নেহার একটাই স্বপ্ন, সেটা হলো একজন আদর্শ সঙ্গীত শিল্পী হবার। সেকারনেই লেখাপড়ার পাশাপাশি পুরটা সময় পার করছে সঙ্গীত চর্চার পিছনে ।

এদিকে উৎস প্রোডাকশন্স এর নিজস্ব অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে গানগুলি মুক্তি পাওয়ার পর ব্যাপক সাড়া ফেলেছে দর্শকদের মাঝে। ইতিমধ্যেই গানগুলি ভাইরাল হওয়া শুরু করেছে। গানের মর্ম কথায় যেন মনে ভাব সাগরের ঢেউ উতালা দেয়। সুরের মুর্ছনায় যেন উদাস বনে চলে যান অনেকেই। আর তাই অনলাইন দর্শকদের মুখে মুখে শুনা যাচ্ছে স্নেহার গানের প্রশংসা। কেউ কেউ গানে মুগ্ধ হয়ে স্নেহার শুভ কামনাও করেছেন কমেন্টসে।