দেওভোগে নির্মম নির্যাতনের শিকার সেই শুভ্রত ‘মারা গেলো’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বাড়ি থেকে ঢেকে নিয়ে নির্মম নির্যাতন। ১৩ হামলাকারীর নাম বলেছে ভূক্তভোগী, সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। অথচ, হামলার ৭ দিন অতিবাহিত হলেও একজন আসামীকেও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

নারায়ণগঞ্জে সংঘবদ্ধ যুবকদের নির্যাতনের শিকার হয়ে আহত সেই যুবক রোববার (২২ মে) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছে। এখন পুলিশ বলছে, ‘আমরা এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অনেককেই চিহিৃত করতে পেরেছি, শীঘ্রই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।’

গত ১৫ই মে গভীর রাতে বাসা থেকে ডেকে পশ্চিম দেওভোগের ইউসূফ মিয়ার বাড়ীর সামনে রাত ২টা পর্যন্ত নির্যাতন করা হয় সুরেশ মন্ডলের ছেলে শুভ্রতকে। স্থানীরা তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে। সেই নির্যাতনের দৃশ্য কেউ একজন ধারণ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করে। মুহুর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়।

এদিকে, অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণের পরামর্শ দেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৭ দিন অবস্থানের পর ২২ মে মৃত্যু বরণ করে শুভ্রত।

এর আগে নিহত শুভ্রত নির্যাতনকারীদের নাম উল্লেখ করেন, সেই ভিডিওটিও সোশ্যাল মিডিয়াই ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে দেখা গেছে, সায়েম, সাজিত, নাঈমুদ্দিন সাজু, দোলন, রাকেশ, আল আমিন, শুভ, ভোটকা শুভ, নিরব, প্রণয়, নোমান সিকদার, অন্ত সাহা ও প্রিতমসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৫/৭জন মিলে ওইরাতে তাকে ধরে নিয়ে গিয়ে মারধর করেন।

চিকিৎসকের বরাত দিয়ে নিহত শুভ্রতর মা জানান, নির্যাতনের কারণে তার দু‘টি কিডনিই ড্যামেজ হয়ে গিয়েছিল।

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মাডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. সাইদুজ্জামান লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আগেই মামলা হয়েছে। যেহেতু যুবকটি মারা গেছে তাই, সেই মামলার মধ্যে হত্যার ধারাটি যুক্ত করা হবে। আমরা এই হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত অনেককেই চিহিৃত করতে পেরেছি, শীঘ্রই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।