নগরবাসীর সা‌থে সুগন্ধা’র নানা প্রতারণা, প্রশাসনের অভিযান প্রশ‌ংসিত

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ভোজন রসিকদের জন্য বেকারির অন্যতম নাম সুগন্ধা। শহরের বেশ কয়েকটি স্থানেই রয়েছে এ প্রতিষ্ঠানটির শাখা। শুধু বেকারিই নয়, একাধিক রেস্টুরেন্টও রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটির। এবার নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের তৎপরতায় বেড়িয়ে আসলো ‘সুগন্ধা’ বেকারি-রেস্তোরা’র আসল চিত্র। জনগণের সামনের উন্মোচিত হলো তাদের কারখানায় প্রস্তুত হওয়া অস্বাস্থ্যকর খাবারের নানা চিত্র।

মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জ জেলা ভোক্তা অধিকার গলাচিপায় অবস্থিত সুগন্ধা’র কারখানায় অভিযান পরিচালনা করে।

এসময় তারা দেখতে পায়, ফ্রিজের একই চেম্বারে মুরগির মাংস ও বেকারি সামগ্রী রাখা হয়েছে। চেরি কালার কৌটার গায়ে আমদানীকারকের মূল্য তালিকা নেই। কৃত্রিম রং ব্যবহার করে খাদ্য পণ্য তৈরি করছে তারা। মেয়াদ উর্ত্তীন পাইন এ্যাপেল ফ্লেভার ব্যবহার করা হচ্ছে। ‘সুগন্ধা লতা সেমাই’এর গাঁয়ে অগ্রিম উৎপাদনের তারিখের সিল দিচ্ছেন এবং প্যাকেটজাত সেমাই মেয়াদ উর্ত্তীন হওয়ার পর টেম্পারিং করে নতুন মেয়াদ দেওয়া হচ্ছে।

এরকমই এক অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ জেলা ভোক্তা অধিকারের সহকারী পরিচালক মো. সেলিমুজ্জামান ৫ টি ধারায় ৪ লাখ টাকা জরিমানা করেন প্রতিষ্ঠানটির।

মো. সেলিমুজ্জামান লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ভোক্তা অধিকার অপরাধে ৩৭ ধারা অনুযায়ী( পণ্যের মোড়ক ইত্যাদি ব্যবহার না করা) ৫০ হাজার টাকা, ৪২ ধারা অনুযায়ী(খাদ্য পণ্যে নিষিদ্ধ দ্রব্যের মিশ্রণ) ২ লাখ টাকা, ৪৩ ধারা অনুযায়ী(অবৈধ প্রক্রিয়ায় পণ্য উৎপাদন বা প্রক্রিয়াকরণ) ৫০ হাজার টাকা, ৪৫ ধারা অনুযায়ী (প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করা) ৫০ হাজার টাকা, ৫১ ধারা অনুযায়ী( মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বা ঔষধ বিক্রয়) ৫০ হাজার টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়েছে।

জেলা ভোক্তা অধিকারের এই সহকারী পরিচালক লাইভ নারায়ণগঞ্জকে আরও বলেন, সুগন্ধা’র কারখানায় যেসব কার্যক্রম চলছে তা জনগণের সাথে চরম প্রতারণা। যারাই এরকম অনৈতিক কাজের সাথে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। জেলা প্রশাসনের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এসময় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা(এনএসআই), পুলিশ, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

0