না.গঞ্জের নদ-নদী গিলে খাচ্ছে পৌনে ২‘শ দখলদার (তালিকাসহ)

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ছোট দোকান থেকে শুরু করে শিল্পপ্রতিষ্ঠান—সবই আছে তালিকায়। কেউ সামান্য টং ঘর তুলে, কেউ বড় শিল্পকারখানা গড়ে তুলে দখল করেছেন শীতলক্ষ্যা নদীতে। এ তালিকায় মান্যগণ্য ব্যক্তি ও রাজনীতিবিদদের নামও রয়েছে। দখলদারদের তালিকায় এমন ১২৭ জনের নাম উঠে এসেছে।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন ওই তালিকা প্রকাশ করেছে।

তালিকার ৫২ জন রূপগঞ্জের, ১৮ জন বন্দর উপজেলার, ৩৩ জন সিদ্ধিরগঞ্জের, ১৬ জন সোনারগাঁ ও ৪ জন সদর থানা এলাকার দখলদার।

দখলদারদের তালিকা বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদীর তীরবর্তী জায়গা দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে অনেকগুলো ডকইয়ার্ড। এর মধ্যে আছে আলম মেরিনার্স সিপ বিল্ডার্স, খান, সৈয়দ, মেটালাইফ, নাজির, মাশরেফ ডকইয়ার্ডসহ ২০টি অবৈধ ডকইয়ার্ড।

শীতলক্ষ্যা ভরাট করে চলছে বালুর ব্যবসা। রূপগঞ্জ অংশে নদী ভরাট করে বালুর ব্যবসা করছে মোহাম্মদ আলী, আব্দুল কাদের, হাজী আনোয়ার হোসেন, মৌমিতা এন্টারপ্রাইজ, সাদিয়া এন্টারপ্রাইজ ও মনির এন্টারপ্রাইজ। এই প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতিটি অন্তত ৪ হাজার ৮০০ বর্গফুট নদী ভরাট করেছে বলে সরকারি নথিতে উল্লেখ করা হয়েছে। এর বাইরে কাঁচা-পাকা ঘর করে নদীর জায়গা দখল করে রেখেছেন আরও অনেকে।

শুধু শীতলক্ষ্যা নদী নয়, নারায়ণগঞ্জ জেলার খাল-বিলের জায়গা আরো ৪৫ দখলদার দখল করে করেছে। সেখানে অবৈধভাবে গড়ে তোলা হয়েছে স্থায়ী, অস্থায়ী নানা স্থাপনা। একেবারে ওয়ার্ড পর্যায় থেকে শহর—সব জায়গায় খাল-নদীতেপড়েছে দখলদারদের থাবা। নদী রক্ষা কমিশনের নির্দেশে স্থানীয় প্রশাসন অবৈধ দখলদারদের তালিকা তৈরি করেছে।

 

নারায়ণগঞ্জ জেলাধীন নদ-নদীর অবৈধ দখলদারদের তালিকা

0