না.গঞ্জের সকল পত্রিকা ছাপা বন্ধ, জাতীয় গু‌লো বিলি হচ্ছে না

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনা নিয়ে এখন কোন তথ্য ঠিক, কোনটা ভুল বোঝা কঠিন; এ সময়ে বরাবরের মতো মানুষের আস্থার জায়গা ছাপা পত্রিকা। কিন্তু ছাপা পত্রিকাও শিকার হচ্ছে গুজব আর তথ্য-সংক্রমণের। তাই নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় পত্রিকার প্রকাশনা বন্ধ করতে অঘোষিত ভাবে বাধ্য হয়েছে কর্তৃপক্ষ। এদিকে, জাতীয় পত্রিকা গু‌লো বিলি হচ্ছে না।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে সাড়া বিশ্বে ছড়িয়ে পর করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে আক্রান্ত হয়েছে ৪৮ জন। মারা গেছে ৫ জন। এ কারণে গত ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও চলছে লকডাউন।

এমন পরিস্থিতিতে পত্রিকার মাধ্যমে ভাইরাস প্রবেশ করবে ঘরে, এ ভয় থেকেই কেউ নিচ্ছে না পত্রিকা। হকাররা বাড়ি বাড়ি পত্রিকা নিয়ে গেলেও তাদের সাথে করা হচ্ছে দূর ব্যবহার। এ ছাড়াও জীবনবাজি রেখে কাজ করতে চাচ্ছে না পত্রিকার এজেন্টরা।

পত্রিকার এজেন্ট ও হকার নেতা মো. লিটন, মো. রবি ও মো. সোহেল লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, হকারা পত্রিকা বিলি করতে চায় কিন্তু করোনার এমন পরিস্থিতিতে মানুষ পত্রিকা নিতে চায় না। পত্রিকার সাথে ভাইরাস ঘরে ডুকবে; এ ভয়ে পত্রিকা নিতে চাচ্ছেনা কেউ। তাই প্রকাশকদের সাথে বসে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত পত্রিকা প্রকাশনা বন্ধ থাকবে নারায়ণগঞ্জে। ১ এপ্রিল থেকে আবারও শুরু হবে।

প্রসঙ্গত, ভয়াবহ এই মহামারির সময় চীনের হুবেই প্রদেশে এক দিনের জন্যও ছাপা পত্রিকা সরবরাহ বন্ধ ছিল না। শুধু চীন নয়, বিশ্বের কোনো দেশে করোনাভাইরাস ছাপা পত্রিকার মাধ্যমে ছড়ায় এ ‘অভিযোগে’ বন্ধ হয়েছে—এমন একটি ঘটনাও নেই।

0