না.গঞ্জে করোনা পরীক্ষার ল্যাব’র দাবি, ৪৬ সংগঠনের যৌথ বিবৃতি

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: করোনাভাইরাসে বিশ্বের প্রায় সমগ্র দেশের মতো বাংলাদেশও আজ এক ভয়াবহ বিপর্যয়ের মুখোমুখী।

মার্চ মাসের ৮ তারিখ দেশে প্রথম করোনা সনাক্তের পর থেকে গত এক মাসে দেশে ২১৮ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং ২০ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। প্রথমে দেশে একমাত্র জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) এর মাধ্যমে করোনা সনাক্তকরণপরীক্ষ করা গেলেও এখন আমাদের সে পরীক্ষা করার সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

বর্তমানে দেশের বিভিন্ন জায়গায় করোনা সনাক্তকরণ ল্যাব স্থাপিত হয়েছে। কিন্তু দেশে প্রথম নারায়ণগঞ্জে করোনা সনাক্ত হয় এবং বর্তমানে এর তীব্রতা ঢাকার পরেই নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। আজ পর্যন্ত এখানে ৩৯ জন সনাক্ত হয়েছেন এবং ৬ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। অন্যদিকে করোনার উপসর্গ নিয়ে বহুলোক মৃত্যুবরণ করলেও পরীক্ষার অভাবে তা সনাক্ত করে নিশ্চিৎ হওয়া যাচ্ছে না। মৃত্যুর পরে পরীক্ষা করে করোনা সনাক্তের কারণে নারায়ণগঞ্জে এর প্রাদুর্ভাব প্রবল ভাবে বৃদ্ধি পাওয়ার আশঙ্কা তৈরী হয়েছে। বিশ্ব-স্বাস্থ সংস্থা ও বিশেষজ্ঞদের মতে কেবল মাত্র ব্যাপকভাবে পরীক্ষা করা ও স্ব-স্ব ঘরে থাকার মাধ্যমেই করোনাকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। কিন্তু আমাদের নারায়ণগঞ্জে এমনি আতঙ্কজনক পরিস্থিতি তৈরী হওয়ার পরেও করোনা পরীক্ষা করার ল্যাব এখনো পর্যন্ত এখানে স্থাপিন করা হয় নাই। ঘনবসতী ও শ্রমিকা ল হওয়ায় নারায়ণগঞ্জ ক্রমান্বয়ে এক ভয়াবহ পরিণতির দিকে যাচ্ছে। যা সমগ্র দেশের জন্যও আতঙ্ক ও হুমকির কারণ হয়ে দাঁড়াবে।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করা সংগঠন সমূহ হচ্ছে, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটি, নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাব, নারায়ণগঞ্জ সাংবাদিক ইউনিয়ন, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোট, আমরা নারায়ণগঞ্জ বাসী, সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ , বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা, কমিউনিস্ট পার্টি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, বাসদ, নারায়ণগঞ্জ জেলা, ওয়ার্কার্স পার্টি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, গণসংহতি আন্দোলন, নারায়ণগঞ্জ জেলা, উদীচী, নারায়ণগঞ্জ জেলা, সমগীত, নারায়ণগঞ্জ জেলা, খেলাঘর, নারায়ণগঞ্জ জেলা, তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি, নারায়ণগঞ্জ জেলা, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) নারায়ণগঞ্জ জেলা, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র, নারায়ণগঞ্জ, জেলা শ্রমিক ফ্রন্ট, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফ্রন্ট, ছাত্র ফেডারেশন, মহিলা ফ্রন্ট, উন্মেষ সাংস্কৃতিক সংগঠন, বসন্তবাহার সঙ্গীত একাডেমি, আনন্দধারা, শহুরে গায়েন, ষড়জ সাংস্কৃতিক সংগঠন, অনন্যা সঙ্গীত একাডেমি, শ্রæতি সাংস্কৃতিক একাডেমি, ধাবমান সাহিত্য আন্দোলন, প্রগতি সাহিত্য পরিষদ, গঙ্গাফড়িং, আওইয়ান গীটার পরিষদ, চন্দ্রবিন্দু, একতা খেলাঘর, সমীরণ খেলাঘর, ক্রান্তি খেলাঘর, কণ্ঠমালা আবৃত্তি সংগঠন, এই বাংলায়, অশোক স্মৃতি সঙ্গীতাঙ্গন, কথন আবৃত্তি সংগঠন, যোদ্ধা, অর্চণা একাডেমি, ঐকিক থিয়েটার, উঠান থিয়েটার, সমমনা।

0