না.গঞ্জে জমি-ওয়ারিশ কিনি নাই, দখলও করি নাই: শামীম ওসমান

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ‘আমার দাদা এমপি ছিলেন, বাবাও এমপি ছিলেন, আমরা ৩ ভাই এমপি। নারায়ণগঞ্জে কোথাও কোন জমি কিনি নাই, ওয়ারিশ কিনি নাই আর দখলও করি নাই। যদি কেউ প্রমান করতে পারে, তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে চলে যাবো।’

সদর উপজেলায় ‘হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু’ ও ‘বঙ্গবন্ধুর মোরাল’ উদ্বোধনকালে মঙ্গলবার (১৬ ফেবুয়ারি) দুপুরে এই কথা গুলো বলেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান।

তাঁর ভাষ্য, ‘উল্টো আমার বড় ভাই সেলিম ওসমান কোটি কোটি টাকা দান করে যাচ্ছেন। উনার চেয়ে হাজার গুণে টাকা পয়সা ওয়ালা লোক আছে, এভাবে দিচ্ছে না কেউ।’

শামীম ওসমান বলেন, ‘আজকে আমি সংসদ সদস্য, নাজিম উদ্দিন ভাইস চেয়ারম্যান, নাহিদা বারিক ইউএনও, নিজাম-সাজনু নেতা, উনি চিকিৎসক আর আপনি সাংবাদিক। কে দিয়েছে এই সম্মান? নিশ্চয়ই আল্লাহ রব্বুল আল আমিন। সেই আল্লাহ তো সব দেখছেন। পৃথিবী থেকে আমরা কেউ কিছু নিয়ে যাবো না, শুধু নেওয়ার জিনিস হচ্ছে মানুষের দোয়া’।

শামীম ওসমান আরও বলেন, ‘জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে মানুষের জন্য কাজ করছে নাকি নিজের জন্য। সুযোগ পেয়ে মানুষের জমি দখল করছেন, মসজিদের জায়গা খেয়ে ফেলছেন নাকি আল্লাহ ও রসূলের পথে কাজ করছেন, মানুষের সম্পদ রক্ষা করছে। সেটা দেখার বিষয় আছে। নাটক করা যাবে, মানুষকে বোকা বানানো যাবে। কিন্তু একটা সময় সব ধরা পড়ে যায়।’

শামীম ওসমান আরও বলেন, ‘মানুষের উপর জুলুম হচ্ছে, একটা মানুষের জমি নিয়ে যাচ্ছে, একটা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের জমি নিয়ে যাচ্ছে, মানুষের উপর অত্যাচার হচ্ছে, আমাদের ডানে বামে দাঁড়িয়ে থেকে মাদক বিক্রি করছে, প্রশাসন ভালো কাজ করছে না। যে যা করছে তাঁর বিরুদ্ধেই নিউজ করেন। রাজনীতি করলে, সত্য কথা বলেন, সংবাদিকতা করলে সত্য কথা বলেন। সেটা আমার বিরুদ্ধে হক কিংবা যার বিরুদ্ধে যায়, যাক। আর যদি না পারেন, তাহলে সাংবাদিকতা করবেন না, আমি না পরলে রাজনীতি করবো না। নারায়ণগঞ্জের সাংবাদিকদের বলতে চাই, ভাই আমরা চেষ্টা করে ছিলাম, সকলকে এক সাথে নিয়ে কাজ করতে। কিন্তু কিছু কিছু মানুষ আছে এক সাথে কাজ করতে চান না।’

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা প্রশাসনের নির্বাগহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, ভাইস চেয়ারম্যান নাজিম উদ্দিন, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু সহ আরও অনেকে।

0
, ,