না.গঞ্জে টাকা দিয়ে বিনা মূল্যের টিকা

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: শিশু মেয়েকে টিকা দিতে নিয়ে এসেছেন এক মা। শিশুটিকে বিনা মূল্যের টিকা দিতে তাঁকে ৭০ টাকা খরচ করতে হয়েছে। এই মা বলেন, ‘যতবার বাচ্চার টিকা দিয়েছি। ততবার টাকা লেগেছে।’ টিকা দিতে টাকা লেগেছে বলে জানান আরও বেশ কয়েকজন শিশুর অভিভাবক।

রোববার (১ মার্চ) সিদ্ধিরগঞ্জের ৩নং ওয়ার্ডের সূর্যের হাসি ক্লিনিকের কদমতলী রমিজ মিয়ার বাড়ির টিকা দান কেন্দ্রে এ চিত্র দেখতে পান স্বয়ং সিদ্ধিরগঞ্জের সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক এমদাদ হোসেন সিদ্দিকী। এরপর ১নং ওয়ার্ডে সূর্যের হাসি ক্লিনিকের অন্য টিকা দান কেন্দ্র হিরাঝিল সিটি ইন্টারন্যাশনাল স্কুল ও মাদানীনগর আইডিয়াল স্কুলে একই চিত্র দেখতে পান।

অথচ, স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইপিআই) বিনা মূল্যে সরবরাহ করার নিয়ম। শিশুমৃত্যুর হার কমাতে শূন্য থেকে ১৫ মাস বয়সী শিশুদের সাতটি টিকা দেয় সরকার।

সদর উপজেলা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ফতুল্লার কাশিপুর, কুতুবপুর, পাইকপাড়া ও সিদ্ধিরগঞ্জের বেশি কিছু এলাকায় বেসরকারি এনজিও সূর্যের হাসি ক্লিনিক শিশুদের টিকা দিয়ে সরকারকে সহযোগীতা করে। তবে, এর জন্য শর্ত হলো টিকা গুলো বিনা মূল্যে সরবরাহ করতে হবে।

টাকার বিনিময় টিকা দেওয়ার ঘটনায় ওই দিনই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দেন  সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক এমদাদ হোসেন সিদ্দিকী।

অভিযোগটিতে উল্লেখ করেন, ‘সূর্যের হাসি ক্লিনিকের ওই টিকা দান কেন্দ্র গুলোর সংশ্লিষ্টরা টিকা গ্রহীতার কাছ ৭০-১০০ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তবে, এ জন্য সংশ্লিষ্টরা নিয়েছে এক অভিনব প্রতারণার আশ্রয়। তারা রশিদপত্রে টাকার বিনিময়ে টিকা দান কথা না- লিখে রেজিষ্ট্রেশন, কনসালটেশন, কাউন্সিলিং বা পিএনসি সেবা লিখে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।’

এ ব্যাপারে অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘ইতোমধ্যেই টিকা সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছি। কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হবে। যদি গ্রহণ যোগ্য উত্তর দেওয়া হয়; তাহলেই তাদের মাধ্যমে টিকাদান কর্মসূচি চলবে। অন্যথায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এর আগেও এমন আরও কয়েকটি টিকা দান কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

0