না.গঞ্জে বিএনপি থেকে আ.লীগে এসে নেতা ও জনপ্রতিনিধি হলেন যারা

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়ে পদপদবি বাগিয়ে নিয়েছেন বিএনপির অনেকেই। এমনকি আওয়ামী লীগের পোড়খাওয়া ত্যাগী নেতাদের হটিয়ে কেউ কেউ জনপ্রতিনিধিও হয়েছেন।

গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর তৈরি এ তালিকা এরই মধ্যে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও সাংগঠনিক সম্পাদক শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলকে দেওয়া হয়েছে। এ দুই নেতা ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক দায়িত্বে রয়েছেন।

এ জেলার আড়াইহাজারের হাইজাদী বিএনপির সভাপতি মোতালেব হোসেন ভূঁইয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং কালাপাহাড়িয়া বিএনপির সহসভাপতি মোহাম্মদ ডালিম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তাদের বিরুদ্ধে মামলাও রয়েছে।

মামলার আসামি হওয়ার পর এ অঞ্চলে আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন সাতগ্রাম বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক পনির মেম্বার, ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ইসমাঈল মেম্বার, ইউনিয়ন যুবদলের সহসভাপতি রিপন মেম্বার, খাগকান্দা যুবদলের সভাপতি আল আমিন, ইউনিয়ন ছাত্রশিবিরের সহসভাপতি তোফাজ্জল হোসেন, ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য এ কে খান ও কালাপাহাড়িয়া বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক রুকু মেম্বার।

আবার যোগ দেওয়ার পর অনেকে আওয়ামী লীগের নেতাও হয়েছেন। যেমন- আড়াইহাজার যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন খান খোকা হয়েছেন ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। ব্রাহ্মন্দী যুবদলের সহসভাপতি ময়নুল মেম্বার হয়েছেন ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি। ব্রাহ্মন্দী যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক শহিদুল্লাহ হয়েছেন ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ অহিদ হয়েছেন ইউনিয়নের ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়ন যুবদলের আয়নুল হক হয়েছেন ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি। খাগকান্দা বিএনপির সভাপতি মফিজুল ইসলাম হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি। খাগকান্দা ইউনিয়ন বিএনপির মোজাম্মেল হক তোতা হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি। দুপ্তারা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশিদ হয়েছেন ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক। দুপ্তারা বিএনপির সদস্য মোহাম্মদ সুজন হয়েছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। সাতগ্রাম যুবদলের সদস্য আবু বক্কর হয়েছেন ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি।

আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েছেন জেলা যুবদলের সহসভাপতি রুহুল আমিন মোল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জের স্থানীয় শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আশিক, সাংগঠনিক সম্পাদক রতন মোল্লা, আড়াইহাজার বিএনপির সাবেক সভাপতি সামসুল হক মোল্লা, সহসভাপতি মাইনুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, সদস্য সাফি মেম্বার, নাছির মাস্টার, জাকির হোসেন, সুফিয়ান সিকদার, থানা ছাত্রদলের সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বুলবুল, সহসভাপতি হারুন অর রশিদ, থানা যুবদলের আহ্বায়ক আবদুর রাজ্জাক, সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, ব্রাহ্মন্দী যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর হোসেনসহ হাবিবুর রহমান মেয়র, সাতগ্রাম বিএনপির আহ্বায়ক মোহাম্মদ সজল, সাধারণ সম্পাদক তাজুল মেম্বার, যুগ্ম সম্পাদক মিলন ভূঁইয়া, জাকির হোসেন, সদস্য মোহাম্মদ রাজু, উচিৎপুরা বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ ইব্রাহিম, গোপালদী পৌর ছাত্রদলের সভাপতি তানভীর আহম্মেদ, পৌর বিএনপির সভাপতি আবুল বাশার কাসু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক মেম্বার, খাগকান্দা বিএনপির সভাপতি করিম প্রধান, রূপগঞ্জ বিএনপির সাহাবুদ্দিন ভূঁইয়া, মোহাম্মদ রফিক, আসাদ ভূঁইয়া, মোহাম্মদ রতন, কবির হোসেন, মোহাম্মদ মামুন, আবদুর রশিদ, মোহাম্মদ সুমন, শুক্কুর আলী ভূঁইয়া, মোহাম্মদ ওয়াদুদ, এ টি এম রেজাউল করিম, মোহাম্মদ নজরুল, এ টি এম জাহাঙ্গীর, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, নুরুজ্জামান খান, মোহাম্মদ রানু, আবদুর রাজাক সিকদার, মোহাম্মদ আরিফ, সফি উদ্দিন, মোহাম্মদ জাকারিয়া, মিঠু মিয়া, মোহাম্মদ মোস্তফা, ফটিক মিয়া, মোহাম্মদ রুবেল, আফজাল হোসেন, মোহাম্মদ মানিক, আবুল ফজল, মোহাম্মদ ইসমাইল, জাকির হোসেন, মোহাম্মদ হামিদ, সিরাজুল্লাহ, মোহাম্মদ সিরাজুল, ফয়েজ মাস্টার, মোহাম্মদ শামীম, আবদুর রহমান, জামাল উদ্দিন, রফিক মিয়া, জাকির হোসেন, মজিবুর রহমান পারভেজ, মতিউর রহমান, আবুল বাশার, আমির হোসেন মোল্লা, প্রদীপ কুমার দাস ও বিজয় কুমার দাস।

এ ছাড়া রূপগঞ্জ জামায়াতে ইসলামীর মোহাম্মদ ইসমাইল, আরমান শিকদার, মোহাম্মদ আজহার, আল আমিন, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, সাইফুল্লাহ, মোহাম্মদ ইয়াকুব, মহিউদ্দিন রুমী, মোহাম্মদ শাহীন, মহিবুর কমিশনার, মোহাম্মদ বিল্লাল, আবদুল মালেক, মোহাম্মদ ভুট্টো, জাহাঙ্গীর মোল্লা এবং মোহাম্মদ শামীমের নামও রয়েছে আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়া নেতাকর্মীর তালিকায়।

(সূত্র: সমকাল)

0