না.গঞ্জ যুবদলের ভাঙ্গনে শত্রুতা!

0

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ:
নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে বরাবরই নানা দল-উপদলে বিভক্ত। মূল দলের নেতৃত্বের দ্বন্দ্বও অঙ্গ সংগঠনে প্রভাব পড়ে। হরহামেশাই গণমাধ্যমে তা প্রকাশ পায়। বৃহৎ দলে নানা মত থাকতেই পারে। তবে, প্রকাশ্যে শত্রুতার রূপ দেখা যায় না। তবে এবার যুবদলে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে পৃথক দুই ভাগে কর্মসূচী পালনই নয়, এক গ্রুপ অপর গ্রুপের বিষয়ে নানা মন্তব্য অনেকটাই প্রকাশ্য শত্রুতারই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে।

যুবদলের নেতাদেও কাছে এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে উভয় গ্রুপই ফরমাল বক্তব্য দিয়ে নিজেদের গাঁ বাচাতে চেষ্টা করেন। যদিও তাদের কর্মকান্ডে দেখা গেছে, মিডিয়া কর্মীদের কাছে নিজের তীর্যক মন্তব্য জাহিরের পাশা পাশি, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও নিজ দলের নেতা বা অন্য গ্রুপের বিরুদ্ধে বিরূপ বাক্য প্রচার করেছেন নির্দ্বিধায়।

যুবদলে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী দুই অংশের কর্মসূচি পালন, ব্যঙ্গাত্নক বক্তব্য, বিরূপ মন্তব্য ও ফেসবুকে স্ট্যাটাস স্পষ্ট শত্রুতা প্রকাশ পায় কিনা জানতে চাইলে যুবদলের নেতারা জানান-

নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের প্রথম যুগ্ম সাধারন সম্পাদক শহিদুর রহমান স্বপন বলেন, দলীয় কোন বিরোধ নেই। তবে পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের সময় সকল দলের লোক রাখলেও যুবদলের কাউকে পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে রাখেনি। কোন প্রোগ্রাম বা আলোচনাতেও আমাদের দাওয়াত দেয় না। তাই আমরাও আমাদের মতো করে প্রোগ্রাম ও আলোচনা সভা করি।

মহানগর যুবদলের সভাপতি খন্দকার মাকছুদুল আলম খোরশেদ বলেন, দলীয় কোন বিরোধ নেই। দুই একজন লোক ব্যক্তিগত স্বার্থে জন্য এই সকল কর্মকান্ড করছে। তাদের মূল লক্ষ্য হচ্ছে নিজস্ব স্বার্থ পূরণের জন্য দলীয় মানুষের মধ্যে বিরোধীতা সৃষ্টি করা।

মহানগর যুবদলের প্রথম যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক সাগর প্রধান বলেন, রাজর্নীতিতে নেতৃত্ব ও পদ-পদবী টিকিয়ে রাখার একজন আরেকজনের সাথে প্রতিযোগীতা করে থাকে। এই প্রতিযোগীতার কারণে ভুল বুজাবুজির সৃষ্টি হয়েছে। তবে একটা সময় সব ঠিক হয়ে যাবে। সকলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশ ও দেশ নেত্রীকে মুক্ত করতে হবে।

0