নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থীদের দল ক্ষমা করবে না: আব্দুল হাই

0

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই বলেছেন, সেদিন বঙ্গবন্ধু’র সর্বকনিষ্ঠ পুত্র ফেরেশতার মত নিষ্পাপ শিশু শেখ রাসেলকে ওরা অমানুষিকভাবে হত্যা করেছিল। ৭৫ এর সেই কালো রাতে অনেক কাকুতি মিনতি করেও বাচতে পারেনি শিশু শেখ রাসেল। খন্দকার মোশতাকদের পিচাশী মন সেদিন গলেনি। বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যার পর সেদিনের ছোট্ট রাসেলকেও ওরা ক্ষমা করেনি। মাথায় সেদিন বুলেটের আঘাতে হত্যা করে সেই জিয়াউর রহমানের দোসররা। আসলে শেখ রাসেলের মাঝে বঙ্গবন্ধুর সব গুণেরই পূর্বাভাস ছিল। আজ বেঁচে থাকলে যে ভিন্নতা বাঙালি জাতি সম্যক অনুধাবন করতে পারত। শিশু বয়সেই লক্ষ করা গেছে বঙ্গবন্ধুর মতোই ছিল তার উদার হৃদয়, ছিল মানুষের প্রতি গভীর ভালোবাসা। তার মধ্যে ছিল অসাধারণ জ্ঞানবাসনা।


সোমবার (১৮ অক্টোবর) মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী সালামের অফিসের সামনে বন্দর উপজেলা শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদ আয়োজিত ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে দোয়া ও কেক কাটার অনুষ্ঠানে প্রধাণ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আসন্ন ইউপি নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, যারা নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী তাদের কখনোই দল ক্ষমা করবে না। আমি শুনেছি মদনপুরে এক শ্রমিকলীগ নেতা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছে। পাশাপাশি তার প্রস্তাবকারী ও সমর্থণকারীও নাকি আওয়ামী লীগের পদ বহন করছেন। আমি তাদের হুশিয়ার করে বলব আগামী ২৬ অক্টোবরের মধ্যে আপনি মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করুন।  নইলে দলের নিয়মানুযায়ী আপনিসহ সমর্থণকারী ও প্রস্তাবকারীদেরও বহিস্কার করা হবে। এবং পদ তো হারাবেনই সারাজীবনেও আপনি আওয়ামী লীগের পক্ষে নির্বাচন করতে পারবেন না।

মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গাজী মোঃ এম এ সালামের সভাপতিত্বে ও বন্দর উপজেলা শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদের সভাপতি  এইচ এম পারভেজ হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আ’লীগের সহসভাপতি শেখ রাসেল, জেলা পরিষদের সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী আরিফুল ইসলাম আলীনূর।

0