পলাতক ৮ হাজার আসামী খুঁজছে ফতুল্লা থানা পুলিশ

0

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পুলিশের সংখ্যা কম, সময় সল্পতার করণে আসামী চিহিৃত করা সম্ভব হয় না, তার উপর গ্রেপ্তারী পরোয়ানা নিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবসার অভিযোগ ছিল বরাবরই; তাই এবার জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের হাতে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা প্রাপ্ত আসামীদের নামের তালিকা তুলে দিয়েছে পুলিশ। সংস্থাটির পক্ষ থেকে আসামীদের ধরিয়ে দিতে চাওয়া হচ্ছে সহযোগীতাও।

মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) দুপুরে ফতুল্লা মডেল থানার সভা কক্ষে এক আলোচনা সভায় পরোয়ানা প্রাপ্ত আসামীদের নামের তালিকা তুলে ধরেন। এসময় সাংবাদিকদের হাতেও এসকল আসামীদের নামের তালিকা তুলে দেওয়া হয়।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক ও ফতুল্লা ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান স্বপন, কুতুবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু, ওসি তদন্ত হাসানুজ্জান, কমিউনিটি পুলিশ ফতু্ল্লা থানা কমিটির সভাপতি মীর মোজাম্মেল আলী, সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা ও ব্যবসায়ী তৈয়বুর রহমান প্রমূখ।

জানা গেছে, জিআর, সিআর ও সাজা প্রাপ্ত ৩টি ভাগে কুতুবপুর ইউনিয়নে রয়েছে প্রায় ২২‘শ আসামীর নাম, ফতুল্লায় ২২‘শরও বেশি, এনায়েতনগরে ১৬‘শ ৪০, কাশিপুরে ১৪‘শ ৭৫, বক্তাবলীতে ৬‘শ সহ বর্তমানে ফতুল্লা থানায় ৮ হাজার ব্যক্তির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা রয়েছে।

এ ব্যাপারটি নিয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী জানান, ফতুল্লা থানায় ৮০ থেকে ১‘শ জন পুলিশ অফিসার কাজ করে। সকলেই ৬ মাস, ১ বছর কিংবা ২ বছর কাজ করে চলে যাচ্ছে। তাই এ পুলিশ অফিসার গুলোর পক্ষে অপরাধী যাচাই করা সম্ভব হয় না। তাই আপনারা এলাকার মানুষ, আপনারা চিনেন এরা কারা? তাই উপরস্থ কর্মকর্তাদের নির্দেশে এ গোপন তালিকা আপনাদের হাতে তুলে দিয়েছি। আপনার এগুলো প্রচার করুন। আসামীদের চিহিৃত করে আমাদের জানান।

এর আগে, গত জুলাই মাসে ২৯ জুলাই ফতুল্লা থানা পুলিশ ইউনিয়ন পরিষদ গুলোতে ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামীদের নামের তালিকা সাটিয়ে ছিল। গত এক মাসে প্রায় ৩ হাজারের মতো গ্রেপ্তারী পরোয়ানা কমিয়ে আনা হয়েছে।

0